২০ মে-কে ‘চা শ্রমিক দিবস’ হিসেবে স্বীকৃতির দাবিতে মানববন্ধন

Published: 16. Apr. 2021 | Friday

অবিলম্বে ২০ মে-কে চা শ্রমিক দিবসের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি, এই দিন মজুরিসহ ছুটি ও দিনটিকে পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত করার দাবিতে মানববন্ধন করা হয়েছে।
চা বাগান শিক্ষা অধিকার বাস্তবায়ন পরিষদের উদ্যোগে শুক্রবার বিকেল ৪টায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সংগঠনের সংগঠক অধীর বাউরীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ চা শ্রমিক ফেডারেশন সিলেট জেলা শাখার নেতা অজিত রায়, চা বাগান শিক্ষা অধিকার বাস্তবায়ন পরিষদের সংগঠক বাদল বাউরী, স্বপ্না, শিউলী বাউরী ও সঞ্জিত বাউরী। পরিচালনায় ছিলেন, রানা বাউরী।
বক্তারা বলেন, একশ বছর আগে ব্রিটিশবিরোধী স্বাধীনতা সংগ্রমে যখন বিদেশী পণ্য বর্জন ও অসহযোগ আন্দোলন চলছিল, তখন তারই অংশ হিসেবে চা শ্রমিকরা সংগঠিত করেন ঐতিহাসিক ‘মুল্লুকে চল’ আন্দোলন। ব্রিটিশ মালিকদের বাগান বর্জন করে তারা পূর্বপুরুষের ভিটায় ফেরত যেতে চেয়েছিলেন। বিহার ও উড়িষ্যাসহ ভারতের বিভিন্ন এলাকা থেকে একদিন মালিকরা প্রতারণা করে তাদেরকে আসামের বাগানে নিয়ে আসে।
চা বাগান মালিকরা বলেছিল, আসামের বাগানে ‘গাছ হিলায়েগা, তো পায়সা মিলেগা’ অর্থাৎ জীবনে সুখ-সমৃদ্ধি আসবে; কিন্তু আসামে এসে শ্রমিকদেরকে পড়তে হয় এক দাসোচিত জীবনে। মানবিক জীবন থেকে তারা ছিটকে পড়েন। অনেকটা বণ্যপ্রাণীদের স্তরে নেমে আসে চা শ্রমিকদের জীবন। নিজেদের জীবনের এই অবরুদ্ধ ক্ষোভ ও বৃটিশবিরোধী আন্দোলনের প্রভাবে শুরু হয় ঐতিহাসিক ‘মুল্লুকে চল’ আন্দোলন। সিলেট থেকে পায়ে হেঁটে ৩০ হাজার চা শ্রমিক চাঁদপুর স্টিমার ঘাটে পৌঁছেন। সেখান থেকে যেতে হবে স্টিমারে; কিন্তু চাঁদপুরে যাওয়ার পর চা তাদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে গুর্খা বাহিনী। গুলি করে হত্যা করে কয়েকশ নিরস্ত্র চা শ্রমিককে। মরদেহগুলো পেট কেটে ফেলে দেওয়া হয় মেঘনা নদীতে, যাতে সন্ধান বা হিসাব পাওয়া না যায়। আন্দোলন দমন করতে গ্রেফতার করা হয় আন্দোলনের নেতা পণ্ডিত গঙ্গাদয়াল দীক্ষিতসহ অসংখ্য চা শ্রমিককে। কারাগারে পণ্ডিত গঙ্গাদয়াল দীক্ষিত অনশন করে আত্মাহুতি দেন।

Share Button
May 2021
M T W T F S S
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31  

দেশবাংলা