JUST NEWS
TODAY WORLD TOURISM DAY IS BEING CELEBRATED IN VARIOUS PROGRAMS ACROSS THE COUNTRY INCLUDING SYLHET
সংবাদ সংক্ষেপ
বিশ্বনাথ উপজেলা জাতীয় পার্টির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত খন্দকার মুক্তাদিরের সুস্থতা কামনায় গোয়াইনঘাটে বিএনপির দোয়া মাহফিল দারুল আইতাম হালিমাতুস সাদিয়া এতিমখানায় অভিভাবক সমাবেশ পর্যটন উন্নয়ন মহাপরিকল্পনায় কক্সবাজারের পরেই থাকছে সিলেট : বিভাগীয় কমিশনার ডিআইজির সঙ্গে সিলেট উইমেনস জার্নালিস্ট ক্লাবের সৌজন্য সাক্ষাত বালাগঞ্জ সরকারি কলেজে মহিউদ্দিন শীরু স্মরণে আলোচনা সভা নাসিব ও এনপিওর উৎপাদনশীলতার গুরুত্ব নিয়ে সেমিনার পরিবেশ ও প্রতিবেশের ক্ষতিসাধন : সাড়ে ৪ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ ধার্য শারদীয় দুর্গোৎসব : রাজনগরে ৭৭টি পূজামণ্ডপে অনুদান বিতরণ সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে লায়ন্স ক্লাব অব সিলেট সুরমার বৃক্ষরোপণ শুরু সিলেট মোবাইল পাঠাগারের ৭৯৪ তম সাহিত্য আসর অনুষ্ঠিত শাল্লায় কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তি বিষয়ক দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ মহিউদ্দিন শীরুর মৃত্যুবার্ষিকীতে জেলা প্রেসক্লাবের শ্রদ্ধা নিবেদন লাখাই বিএনপির মতবিনিময় সভায় খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার ঘোষণা জগন্নাথপুরে ‘পিউরিয়া’ ফুড প্রোডাক্টের আউটলেট উদ্বোধন জগন্নাথপুরে মায়ের মরদেহ ঘরে রেখে এসএসসি পরীক্ষা দিলো মেয়ে

হবিগঞ্জে মায়ের পরকীয়ার বলি শিশুসন্তান : আদালতে স্বীকারোক্তি

  • বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জে মায়ের পরকীয়ায় এক শিশুসন্তানকে প্রাণ দিতে হয়েছে। তবে বেঁচে গেছে অপর দুই শিশুসন্তান। পাষণ্ড মা নিজের মুখে আদালতে রোমহর্ষক এ ঘটনার বিবরণ দিয়েছে।
মঙ্গলবার হবিগঞ্জের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম তৌহিদুল ইসলামের আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় অভিযুক্ত ফাহিমা খাতুন। স্বীকারোক্তি গ্রহণ শেষে তাকে কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।
পরে রাতে নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রবিউল ইসলাম এ তথ্য জানান।
তিনি জানান, দীর্ঘদিন ধরে সদর উপজেলার রাজিউড়া ইউনিয়নের উচাইল-চারিনাও গ্রামের ইজিবাইক চালক সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী ফাহিমা খাতুনের সঙ্গে প্রতিবেশী বিয়ে পাগলা আক্তার মিয়ার পরকীয়া চলছিল। একপর্যায়ে বিয়ের পরিকল্পনা করে দু’জনে; কিন্তু এতে বাধা হয়ে দাঁড়ায় ফাহিমা খাতুনের তিন সন্তান। তাই প্রেমিক-প্রেমিকা মিলে তাদেরকে হত্যার চক্রান্ত করে।
২০১৯ সালের ১৮ নভেম্বর সন্ধ্যায় বাড়ির পাশের দোকান থেকে ফাহিমা খাতুন ২টি লিচুর জুস কিনে এনে আক্তার মিয়াকে দেয়। সে তাতে বিষ মেশায়। এরপর তারা তিন শিশুকে উঠান থেকে ডেকে এনে জুস খেতে দেয়। আর তা খাওয়ার পরপরই বিষক্রিয়ায় শিশুরা ছটফট করতে থাকে। তাদেরকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে গেলে ৭ বছরের সাথী আক্তারকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। অপর দুই শিশু তোফাজ্জল ইসলাম ও রবিউল ইসলামকে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে চিকিৎসায় তারা সুস্থ হয়ে উঠে।
পরবর্তী সময়ে ফাহিমা খাতুন ও আক্তার মিয়ার পরকীয়া ফাঁস হয়ে গেলে শিশুদের পিতা সিরাজুল ইসলাম বাদি হয়ে স্ত্রী ফাহিমা খাতুনসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More
স্বত্ব : খবরসবর ডট কম
Design & Developed by Web Nest