JUST NEWS
A NAVAL POLICEMAN WAS BEATEN TO DEATH IN BANYACHANG : KILLER ARRESTED
সংবাদ সংক্ষেপ
বানিয়াচংয়ে এক নৌ পুলিশ সদস্যকে পিটিয়ে হত্যা || ঘাতক গ্রেফতার পুরুষদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে নারীরাও গুরুত্বপূর্ণ নেতৃত্ব দিচ্ছেন : বিভাগীয় কমিশনার সিলেট ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পন্ন সিলেটের বিক্ষোভ সমাবেশ সফলে কোম্পানীগঞ্জ বিএনপির প্রস্তুতি সভা বিশ্বনাথে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ইলিয়াস আলীকে ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি প্রবাসীদের শ্রমিকদের মাঝে আনজুমানে খেদমতে কুরআনের শীতবস্ত্র বিতরণ ছাতকের পল্লীতে আব্দুল জলিল ও জহুরা বিবি ফ্রি মেডিক্যাল সেন্টার সিলেট অঞ্চলে এক ইঞ্চি জমিও পতিত না রাখার নির্দেশনা বাস্তবায়নে করণীয় নির্ধারণ জীবনে সফল হতে নিয়মানুবর্তিতা ও শৃঙ্খলা প্রয়োজন : ড জহিরুল হক এনইইউবির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যানের মৃত্যুবার্ষিকী পালন আবাসন ব্যবসায় গতি ও ক্রেতার আস্থা ফিরিয়ে আনতে মেলার আয়োজন করছে সারেগ মাধবপুরে গাঁজা ও পিকআপসহ মাদক কারবারি আটক শাহজালাল জামেয়ার বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন বাংলাদেশ এখন ডিজিটাল থেকে আরেক ধাপ এগিয়ে স্মার্ট বাংলাদেশের পথে : হাবিব Staying the Course : Journey of ‘Bengal’ Civilian মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির স্প্রিং সেমিস্টারের শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন

হবিগঞ্জে পূর্ব বিরোধের জের ধরে ৭ গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত ৫০ জন

  • শনিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জে পূর্ব বিরোধের জের ধরে ৭ গ্রমাবাসীর সংঘর্ষে কমপক্ষে ৫০ জন আহত হয়েছে।
আহতদের মধ্যে ৭০ জনকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে এবং আশংকাজনক অবস্থায় ৫ জনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
এলাকাবাসী জানান, প্রায় এক মাস পূর্বে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার চাঁনপুর ও পার্শ্ববর্তী বানিয়াচঙ্গ উপজেলার শাহপুর গ্রামের শিশুদের মাঝে ঝগড়া হয়। এরই জের ধরে বৃহস্পতিবার রাতে চাঁনপুর গ্রামের নইয়া মিয়ার ছেলে সেলিমকে তার বাড়িতে এসে শাহপুর গ্রামের নজরুল চৌধুরীর ছেলে ইমন চৌধুরী রামদা দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। তাকে গুরুতর অবস্থায় ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। ইমন চৌধুরী ও সেলিম শাহপুর বাজারের ব্যবসায়ী।
এই ঘটনার জের ধরে শনিবার দুপুরে চাঁনপুর গ্রামের লোকজন শাহপুর বাজারে গিয়ে প্রতিপক্ষের দোকানপাট ভাংচুর ও লুটপাট শুরু করে। পরে শাহপুর গ্রামের লোকজনও পাল্টা আক্রমণ শুরু করলে সংঘর্ষ শুরু হয়। চাঁনপুরের পক্ষ নেয় সদর উপজেলার কাশিপুর ও গজারিয়াকান্দি গ্রামবাসী। অন্যদিকে শাহপুরের পক্ষ নেয় বানিয়াচঙ্গ উপজেলার ইয়ালা, রতনপুর, দক্ষিণ সাঙ্গর ও মক্রমপুর গ্রামের মানুষ।
খবর পেয়ে জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার রাসেলুর রহমান, হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি ইয়াছিনুল হক ও বানিয়াচঙ্গ থানার ওসি অমূল্য কুমার চৌধুরীর নেতৃত্বে পুলিশ ৪ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More

লাইক দিন সঙ্গে থাকুন

স্বত্ব : খবরসবর ডট কম
Design & Developed by Web Nest