JUST NEWS
TODAY WORLD TOURISM DAY CELEBRATED IN VARIOUS PROGRAMS ACROSS THE COUNTRY INCLUDING SYLHET
সংবাদ সংক্ষেপ
সিলেটে আজ থেকে দুদিনব্যাপী বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক উৎসব প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার জন্মদিনে সিলেট ছিল উৎসবমুখর সিলেটে টিলা কাটার অপরাধে দুই জনের ১৫ দিনের কারাদণ্ড আর তথ্য গোপন নয়-তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করতে হবে : জেলা প্রশাসক যৌন হয়রানির অভিযোগে শাবিপ্রবির থেকে ৭ ছাত্র বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার সিলেটে বাউল গানের নামে অপকর্ম বন্ধের দাবিতে স্মারকলিপি পেশ শারদীয় দুর্গোৎসবে যেকোন পরিস্থিতি মোকাবেলায় সকলকে সতর্ক থাকার নির্দেশ এসপির বিয়ানীবাজারে বিপুল পরিমাণ জাল নোটসহ একজন গ্রেফতার প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে মাধবপুরে এতিম ছাত্রদের মাঝে খাবার বিতরণ দক্ষিণ সুরমায় ব্যাংকিং সুবিধাসহ সাবরেজিস্ট্রারি অফিস দাবি শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে মাধবপুরে বিশেষ আইনশৃঙ্খলা সভা সিলেটে আলীম ইন্ডাস্ট্রিজ পরিদর্শনে ইউরোপীয় ইউনিয়ন প্রতিনিধি দল করোনা প্রতিরোধে ঈকোয়্যালিটি সোসাইটির টাউন হল মিটিং নেতাদের রোগমুক্তি কামনায় সদর উপজেলা বিএনপির দোয়া মাহফিল শেখ হাসিনাকে জানতে হলে জানতে হবে বঙ্গবন্ধুকে : ডেপুটি স্পিকার মাধবপুরে পূজামণ্ডপে অনুদান বিতরণ করেছেন জেলা প্রশাসক

সারাদিনেও নিশ্চিত হওয়া যায়নি কোম্পানীগঞ্জে পাথর শ্রমিকের মৃত্যুর বিষয়টি

  • সোমবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় ভোলাগঞ্জ কোয়ারি সংলগ্ন শারপিন টিলা এলাকার মাটিয়া টিলায় পাথরের নতুন গর্ত ধসে শ্রমিকের মৃত্যু খবর নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। এ পর্যন্ত দুই জনের নাম পাওয়া গেছে, যারা মারা গেছেন বলে দাবি উঠেছে; কিন্তু পুলিশ বলছে, ঘটনাস্থলে কোন লাশ পাওয়া যায়নি।
সোমবার সকাল ৭টার দিকে অত্যন্ত দুর্গম এলাকায় এ গর্ত ধসের ঘটনা ঘটে। এর প্রায় ৪ ঘণ্টা পর সিলেটে সাংবাদিকদের কাছে ফোন আসে ৬ জন পাথর শ্রমিক মারা গেছে বলে; কিন্তু অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) সুজ্ঞান চাকমা জানান, মারা গেছে ২ জন। অন্যদিকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাছুম বিল্লাহ জানান, ১ জনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে গণমাধ্যমের কোনটিতে ২ জন আবার কোনটিতে ১ জনের মৃত্যুর খবর প্রচারিত-প্রকাশিত হয়।
বিকেল ৩টার দিকে পুলিশ কর্তৃপক্ষ জানান, আল হাদি ও আব্দুল কাদির নামের ২ জন পাথর শ্রমিক গর্ত ধসের পর থেকে নিখোঁজ রয়েছেন। তারা মারা গেছনে বলে এলাকাবাসী দাবি করলেও পুলিশ তাদের বা অন্য কারো মরদেহ পায়নি।
এ দুই পাথর শ্রমিকের বাড়ি নেত্রকোনায় বলে পুলিশ জানিয়েছে।
অন্যদিকে একই সময়ে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৯ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রফিক মিয়া নামের এক আহত শ্রমিকের সন্ধান পাওয়া যায়। তিনি জানান, ৫/৬ জন মারা গেছেন বলে শুনেছেন।
তবে মধ্যরাত পর্যন্ত রহস্য ভেদ হয়নি। নিশ্চিত হওয়া যায়নি আসলে কোন পাথর শ্রমিক মারা গেছেন কি না। আবার মারা যাননি সে ব্যাপারেও কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারেননি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More
স্বত্ব : খবরসবর ডট কম
Design & Developed by Web Nest