JUST NEWS
SAMMYABADI DAL CENTRAL POLITBURO MEMBER COMRADE DHIREN SINGH PASSED AWAY
সংবাদ সংক্ষেপ
হবিগঞ্জে দুর্নীতি প্রতিরোধ দিবসে মানববন্ধন ও আলোচনা সভা হবিগঞ্জে বেগম রোকেয়া দিবসে ১০ জয়িতাকে সংবর্ধনা জ্ঞাপন Five successful women in Sylhet received Joyita award সিলেটে এবার বিভিন্ন ক্ষেত্রে সফল পাঁচ নারীর হাতে তুলে দেওয়া হলো জয়িতা সম্মাননা সোনারবাংলা গড়তে দায়িত্ব পালন করতে হবে নিজ নিজ অবস্থান থেকে দুর্নীতি বিরোধী দিবস উপলক্ষে সিলেটে রয়েছে নানা কর্মসূচি সুনামগঞ্জ জেলা এডুকেশন ট্রাস্ট ইউকের নতুন কমিটি গঠিত Sylhet development round table meeting on Dec 30 পুলিশ সাদা ব্যাগে ককটেল রেখেছে কেন্দ্রীয় বিএনপি কার্যালয়ে : এমরান ঢাকায় মাহবুব আলমকে গ্রেফতারে নিন্দা সিলেট জেলা বিএনপির সিলেটের আঞ্চলিক উন্নয়নে গোলটেবিল বৈঠক ৩০ ডিসেম্বর || যোগ দেবেন মন্ত্রী-সংসদ সদস্য মৌলভীবাজারে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে পাকিস্তানি হানাদার মুক্ত দিবস উদযাপন শহীদ শেখ মনির জন্মদিন উপলক্ষে শিশুদের মাঝে খাবার বিতরণ বানিয়াচংয়ে খেলাফত মজলিসের উলামা ও কর্মী সমাবেশ সুনামগঞ্জে বাউল কামাল পাশার ১২১ তম জন্মবার্ষিকী পালিত পুষ্টি ক্ষেত্রে সিলেটের পরিস্থিতি দেশের অন্যান্য জেলার চেয়ে খারাপ : জেলা প্রশাসক

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সঠিক পথেই এগিয়ে যাচ্ছে : হারুন হাবীব

  • রবিবার, ২ জুলাই, ২০১৭

এনা, নিউইয়র্ক : সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম মুক্তিযুদ্ধ ’৭১ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সচিব বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কলামিস্ট হারুন হাবীব বলেছেন, ‘ত্রিশ হাজার শহীদের রক্ত এবং দুই লাখ মা-বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতত্বে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছিলো; কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য যে, আমরা সেই স্বাধীনতা ধরে রাখতে ব্যর্থ হয়েছিলাম। স্বাধীনতার মাত্র সাড়ে তিন বছরের মাথায় জাতির জনককে নৃশংসভাবে হত্যার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ছিনতাই করা হয়। তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ছিনতাই হওয়া স্বাধীনতা পুনরুদ্ধার করা হয়েছে।’
তিনি আরো বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন সঠিক পথই এগুচ্ছে। তিনি মুক্তিযোদ্ধাদের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করেছেন। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করছেন। বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার করেছেন।
যুক্তরাষ্ট্রে নব গঠিত সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের ‘মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ আজ কোন পথে’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি মূল প্রবন্ধে এসব কথা বলেন।
শনিবার সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের পালকি পার্টি হলে এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়।
সংগঠনের সভাপতি রাশেদ আহমেদের সভাপতিত্বে ও আশরাফুল হাসান বুলবুলের পরিচালনায় সেমিনারে গেস্ট অব অনার ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সহকারী আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপ ও জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেন। প্যানেলিস্ট ছিলেন অ্যাটর্নি অশোক কর্মকার ও কবি ফকির ইলিয়াস। আলোচক ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড সিদ্দিকুর রহমান, নিউজার্সির কাউন্সিলম্যান ড নূরন্নবী ও নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কন্স্যুলেটের কন্সাল জেনারেল শামীম আহসান। এছাড়া সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম যুক্তরাষ্ট্র শাখার সদস্য সচিব রেজাউল বারী ও প্রবীণ সাংবাদিক সৈয়দ মোহাম্মদ উল্যাহ মঞ্চে উপবিষ্ট ছিলেন।
হারুন হাবীব বলেন, এক সময় বাংলাদেশে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের কথা চিন্তাই করা যেত না। স্বাধীনতা ও বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর নামও উচ্চারণ করা যেত না।
তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের অনেক অর্জন। এই অর্জনকে ধরে রাখার প্রয়োজনে শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় রাখতে রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক শক্তির সমন্বয় ঘটাতে হবে।
আব্দুস সোহবান গোলাপ বলেন, জিয়াউর রহমান পাকিস্তানি নাগরিক গোলাম আযমকে নিয়ে এসে বাংলাদেশের নাগরিকত্ব দিয়েছিলেন। শাহ আজিজুর রহমানকে প্রধানমন্ত্রী করেছিলেন। দালাল আইন বাতিল করেছিলেন। জাতির জনকের হত্যাকারীদের বিচার কাজ বন্ধ করেছিলেন। একাত্তরের পরাজিত চক্রকে পুনর্বাসন করে বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধ্বংস করেছিলেন। একই পথ অনুসরণ করেন এরশাদ। তিনি বঙ্গবন্ধুর খুনি ফারুককে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সুযোগ করে দিয়েছিলেন। কর্নেল রশিদকে এমপি বানিয়ে জাতীয় সংসদে বিরোধী দলের নেতা বানিয়েছিলেন, রাজাকার ও বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিভিন্ন দেশে রাষ্ট্রদূত বানিয়েছিলেন। খালেদা জিয়াও রাজাকারদের মন্ত্রী বানিয়েছিলেন।
তিনি শেখ হাসিনার উন্নয়নের রাজনীতি চিত্র তুলে ধরে বলেন, বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের মহাসড়কে রয়েছে।
মাসুদ বিন মোমেন বলেন, ‘শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, যে কারণে জাতিসংঘ সহ সারা বিশ্ব আমাদের সম্মান দেখায় এবং আমাদেরকে রোল মডেল হিসাবে ব্যবহার করে’।
ড নূরন্নবী বলেন, শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আছেন বলেই বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করা সম্ভব হয়েছে। আমেরিকা, জাতিসংঘ এবং অন্যান্য দেশ থেকে ফোন করা হয়েছিলো যুদ্ধারাধীদের ফাঁসি না দেয়ার জন্য; কিন্তু শেখ হাসিনা কাউকেই কেয়ার করেননি। বিশ্ব ব্যাংককে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে নিজেই পদ্মা সেতু তৈরি করছেন।
ড সিদ্দিকুর রহমান বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়িত হয়েছে, স্বাধীনতার সুফল মানুষ ভোগ করছে। আজকে আলোচনা হওয়া উচিত কিভাবে আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনা যায়।
অ্যাটর্নি অশোক কর্মকার বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতনের কথা তুলে ধরেন।
তিনি বলেন, সংখ্যালঘুদের কথা বলতে গিয়ে সুলতানা কামাল, শাহরিয়ার কবির ও জাফর ইকবাল সহ অনেকেই সমস্যায় পড়েছেন। সুতরাং কোন পথে বাংলাদেশ সেটা চিন্তার বিষয়।
ফকির ইলিয়াস শহীদ জনীন জাহানারা ইমামের সংগ্রামের কথা তুলে ধরে বলেন, তিনি বলেছিলেন, বাংলাদেশ একদিন যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হবে-সেটা শেখ হাসিনা বাস্তবায়ন করেছেন।
অনুষ্ঠানে নতুন কমিটিকে শপথ বাক্য পাঠ করান হারুন হাবিব। এই কমিটিতে রয়েছেন, সভাপতি রাশেদ আহমেদ, সহ সভাপতি হারুন উর রশিদ ভঁ‚ইয়া, আবুল বাশার চুন্নু ও শিল্পী রথীন্দ্র নাথ রায়, সদস্য সচিব রেজাউল বারি, যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল কাদের মিয়া, এস এম সোলায়মান আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক নূরুল আমিন বাবু, কোষাধ্যক্ষ দেবাশীষ দাস বাবলু, প্রচার সম্পাদক শুভ রায়, দফতর সম্পাদক লিয়াকত আলী, আইন বিষয়ক সম্পাদক রফিক আহমেদ, প্রকাশনা সম্পাদক তানভীর হাবিব শুভ, সাংস্কৃতিক সম্পাদক শিল্পী শহীদ হাসান, সমাজকল্যাণ সম্পাদক জাফর উল্যাহ, নারী বিষয়ক সম্পাদক সবিতা দাস, যুব বিষয়ক সম্পাদক ফাহাদ সোলায়মান, সদস্য লাবলু আনসার, হারুণ চৌধুরী, শহীদুল ইসলাম, আশরাফ উদ্দিন লিটন, এনামুল হক, কামরুল ইসলাম, নান্টু মিয়া ও শবনম মেহের প্রিয়া।
অনুষ্ঠানে হারুন হাবীব ও আব্দুল সোবহান গোলাপকে সংগঠনের পক্ষ থেকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।
শেষ পর্বে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন রথীন্দ্র নাথ রায়, শহীদ হাসান, শাহ মাহবুব ও চন্দ্র রায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More

লাইক দিন সঙ্গে থাকুন

স্বত্ব : খবরসবর ডট কম
Design & Developed by Web Nest