NATIONAL
Prime Minister Sheikh Hasina said that she was afraid that the BNP-Jamaat alliance could do such an attack to stop the country's progress on the road to prosperity || প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তার আশঙ্কা ছিল, সমৃদ্ধির পথে দেশের অগ্রযাত্রা রুখে দিতে বিএনপি-জামায়াত জোট এই ধরনের হামলা করতে পারে
সংবাদ সংক্ষেপ
অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় আরেকটি কৃষ্ণকাল অতিক্রম করলো বাংলাদেশ Sylhet Chamber thanked the Prime Minister অস্থিতিশীল পরিস্থিতি দক্ষ হাতে নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানালো সিলেট চেম্বার সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য সৃষ্টির অপতৎপরতার বিরুদ্ধে এবার রাজপথে নামছে আওয়ামী লীগ জৈন্তাপুরে পুলিশের অভিযানে ২৫০ পিস ইয়াবা ও ৪৯৬ গ্রাম গাঁজাসহ গ্রেফতার ২ আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সিলেটে গায়েবানা জানাজা অনুষ্ঠিত কোটা সংস্কার আন্দোলকে কেন্দ্র করে বুধবারও সিলেট উত্তপ্ত ছিল জকিগঞ্জে দুই মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই কিশোর নিহত || আহত ২ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী সকল ষড়যন্ত্র সাংস্কৃতিক আন্দোলনের মাধ্যমে মোকাবিলার অঙ্গীকার ঘোষণা ভবিষ্যৎ প্রজন্মের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে আন্দোলন করছে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার : ড আখতারুল ইসলাম মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী স্লোগানের নিন্দা জাস্টিস ফর বাংলাদেশ জেনোসাইডের সিলেট চেম্বারের সেমিনার ওয়ার্কশপ ও সম্মাননা প্রদান সাব-কমিটির সভা জঙ্গি সন্ত্রাস মাদক ও কিশোর গ্যাং নির্মূলে কাজ করতে হবে একসঙ্গে : এসএমপি কমিশনার দক্ষিণ সুরমার পারাইরচকে এসএমপি পুলিশ লাইন্স ও পিবিআইর সদর দফতরের স্থান নির্ধারণ সম্মিলিত প্রচেষ্টায় শিক্ষাক্ষেত্রে সিলেটকে এগিয়ে নিতে হবে : মেয়র আনোয়ারুজ্জামান রথযাত্রা বাঙালি সংস্কৃতির অংশ হয়ে গেছে : নাসির উদ্দিন খান

শমশেরনগর বিমানবন্দরে এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবি

  • বুধবার, ২৮ জুন, ২০১৭

জালাল আহমদ, বড়লেখা : দেশে আরও দুটি নতুন সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে। একটি লক্ষীপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আর অন্যটি এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয়। খুব শিগগির এ ব্যাপারে সরকারের উচ্চ পর্যায় থেকে আনুষ্ঠানিক অনুমোদন আসছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।
আরো জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নতুন এই দুটি উচ্চতর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত দিয়ে দিয়েছেন। তবে এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয়টি কোথায় করা হবে-এ বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন-ইউজিসি খসড়া আইন তৈরির কাজ করছে।
এদিকে এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয়টি মৌলভীবাজারের শমশেরনগর বিমানবন্দরে স্থাপন করার দাবি তুলেছেন মৌলভীবাজারের সর্বস্তরের জনসাধারণ। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনা ও যুক্তি উপস্থাপন চলছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, দেশে বিমান চালানো, কারিগরি মেরামত ও পরিচালনায় এভিয়েশন বিষয়ে পড়ালেখার চাহিদা ক্রমেই বাড়ছে; কিন্তু এ বিষয়ে দেশে সরকারি কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নেই। এই সুযোগে বিচ্ছিন্নভাবে দেশের বিভিন্ন স্থানে বেসরকারিভাবে শিক্ষার্থীদের এভিয়েশন বিষয়ে ডিগ্রি দেয়া হচ্ছে। এছাড়া অনেকে এ বিষয়ে পড়াশোনা করতে দেশের বাইরে চলে যায়। এ পরিস্থিতিতে সরকার দেশে একটি এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
মৌলভীবাজারে এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের দাবির সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন মৌলভীবাজার-১ (বড়লেখা-জুড়ী) আসনের সংসদ সদস্য জাতীয় সংসদের হুইপ শাহাব উদ্দিন, মৌলভীবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল মুতিন, মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা সায়রা মহসিন, মৌলভীবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুস শহীদ ও জেলা পরিষদ প্রশাসক আজিজুর রহমান। এছাড়াও উপজেলা চেয়ারম্যান, জেলা পরিষদের সদস্য, ব্যবসায়ী, শিক্ষক ও সমাজকর্মীরা শমশেরনগর বিমানবন্দরে এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয়টি স্থাপনের দাবির প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছেন।
শমশেরনগর বিমানবন্দর এলাকায় বিমানবাহিনীর ৬২২ একর জায়গা রয়েছে। এই পরিমাণ জায়গা থাকায় নতুন করে জমি অধিগ্রহণের প্রয়োজন হবে না। রেল ও সড়কপথে যোগাযোগে রয়েছে উন্নত ব্যবস্থা। দেশের যে কোনো প্রান্ত থেকে শিক্ষার্থীরা সহজেই এখানে আসা-যাওয়া করতে পারবেন।
১৯৪৫ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জাপান, মিয়ানমার, মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়ায় অভিযান চালানোর জন্য ব্রিটিশ সরকার কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর চা বাগানের ৬২২ একর ভূমি অধিগ্রহণ করে একটি বিমানবন্দর গড়ে তুলে। ১৯৭৫ সালে এখানে বিমানবাহিনীর একটি প্রশিক্ষণ ইউনিটও খোলা হয়। পরবর্তী সময়ে একটি পরীক্ষণ স্কুল স্থাপন করে চালু করা হয় বার্ষিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। তখন থেকেই প্রয়োজন অনুযায়ী বিমানবাহিনীর প্রশিক্ষণ বিমান ও হেলিকপ্টার উঠানামা করছে। বিমানবাহিনীর রিক্রুটমেন্ট অফিসও খোলা হয়েছে। সংস্কার করা হয়েছে রানওয়ে। ২০১২ সালে বিএএফ শাহীন কলেজের কার্যক্রম শুরু করা হয়। বিমানবন্দরটিতে প্রতিবছর বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর জাতীয় ক্যাডেট কোর বিমান শাখার সদস্যদের অগ্নি নির্বাপণ, প্রাথমিক চিকিৎসা, রাডার নিরাপত্তা ও ফায়ারিং সহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।
এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয় মৌলভীবাজারের শমশেরনগরে স্থাপনের বিষয়ে সাংসদ সৈয়দা সায়রা মহসিন জানান, জাতীয় সংসদে তিনি এ নিয়ে কথা বলবেন।
সাংসদ ও সাবেক চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ জানান, এটা শুধু মৌলভীবাজারবাসীর নয়, পুরো দেশবাসীর দাবি হওয়া উচিত-এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয়টি যেনো শমশেরনগর বিমানবন্দর এলাকায় স্থাপন করা হয়।
মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ জানান, এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয়টি যেন শমশেরনগর বিমানবন্দর এলাকায় স্থাপন করা হয়। এখানে পর্যাপ্ত জায়গাও রয়েছে। ফলে উদ্যোগটির সফল বাস্তবায়ন অনেকটা সহজ হয়ে যাবে।
মৌলভীবাজার শিক্ষা ও সামাজিক উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি আবু তাহের মনে করেন, এভিয়েশন বিশ্ববিদ্যালয় যেহেতু বিমানবাহিনীর সাথে সম্পর্কযুক্ত তাই শমশেরনগর বিমানবন্দরে পর্যাপ্ত জায়গা থাকায় এটা এখানে স্থাপন করা অবশ্যই যুক্তিযুক্ত হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More

লাইক দিন সঙ্গে থাকুন

স্বত্ব : খবরসবর ডট কম
Design & Developed by Web Nest