JUST NEWS
THIS TIME ON EID-UL-AZHA 6 ANIMAL MARKETS HAVE BEEN APPROVED IN SYLHET CITY CORPORATION AREA AND 45 IN DIFFERENT UPAZILAS
সংবাদ সংক্ষেপ
হবিগঞ্জে লায়ন ডিস্ট্রিক্ট পিডিজি ফোরামের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ সুনামগঞ্জে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে অর্থ ও ত্রাণসামগ্রী বিতরণ নবীগঞ্জ পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী রাহেল চৌধুরী কারাগারে সিলেটে কৃষকদেরকে এপেক্স ক্লাব অব গ্রীণ হিলসের বীজ প্রদান এরশাদ-আম্বিয়া ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনায় জগদলে ত্রাণ বিতরণ গোয়াইনঘাট উপজেলায় বিদেশ ফাউন্ডেশনের ত্রাণসামগ্রী বিতরণ বিশ্বনাথের দুই ইউনিয়নে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের ত্রাণ বিতরণ এম এ হকের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জেলা বিএনপির দোয়া মাহফিল কান্দিগাঁও ইউনিয়নে সিলেট সদর উপজেলা বিএনপির ত্রাণ বিতরণ এ্যাম্বাসেডর শহিদুরকে মানবাধিকার কমিশন সিলেটের সংবর্ধনা দীঘলবাঁকে ১ হাজার বন্যার্ত পরিবারে মিলাদ গাজীর খাদ্য ও অর্থ বিতরণ নবীগঞ্জে বন্যার্তদের পাশে বাংলাদেশ সৎসঙ্গের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ সিলেট-তামাবিল সড়কে মারা গেলো মোটরসাইকেল আরোহী ৩ কিশোর ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের অভিযানে ৬ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা বাংলাদেশ উইমেন চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির ত্রাণ বিতরণ আশার আলো যুব কল্যাণ সংঘের উদ্যোগে কর্মশালা অনুষ্ঠিত

মহানগরীর তেমুখি-বাদাঘাট এলাকায় শুরু হলো খাল উদ্ধার অভিযান

  • মঙ্গলবার, ২৪ মে, ২০২২

বিশেষ প্রতিবেদক : সিলেট মহানগরীর তেমুখি-বাদাঘাট সড়কের পার্শ্ববর্তী এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসন ও খাল উদ্ধারে সড়ক ও জনপথ বিভাগ এবং সিলেট সিটি করপোরেশন যৌথ অভিযানে নেমেছে।
সোমবার থেকে শুরু হয়েছে এ অভিযান। চলবে তেমুখি থেকে বাদাঘাট পর্যন্ত। এতে এলাকার জনমনে স্বস্তি বিরাজ করছে।
গত কয়েক বছর ধরে বর্ষা মৌসুম আসামাত্র জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয় কুমারগাঁও, নাজিরেরগাঁও, খালিগাঁও, মইয়ারচর, নোয়া খুররমখলা, সোনাতলা ও নলকট এলাকায়। তাই গত দুই বছর ধরে জলাবদ্ধতার কবল থেকে মুক্তি চেয়ে আন্দোলন করছেন এসব এলাকার মানুষেরা। তাদের অভিযোগ, মূলত খাল দখল করে ঘরবাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার কারণেই পানি প্রবাহের পথ বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে বৃষ্টি হলে বা নদীতে পানি বাড়লেই ঘরবাড়ি ও রাস্তাঘাট পানিতে সয়লাব হয়ে যায়। নানা ভোগান্তির পাশাপাশি দেখা রোগবালাইও দেখা দেয়।
এ নিয়ে সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসী সিলেট-১ আসনের সাংসদ, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড এ কে আব্দুল মোমেন, সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্মকর্তাদের শরণাপন্ন হন। এছাড়া সম্প্রতি বন্যা পরিস্থিতি পরিদর্শনে এলে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিও জানান। তিনি ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এলাকাবাসীকে সহযোগিতায় এগিয়ে আসার আহবান জানান। এরপরই খাল উদ্ধারসহ সরকারি জমি চিহ্নিতকরণের কাজ শুরু হলো। অভিযানের দ্বিতীয়দিন মঙ্গলবার নোয়াখুররম এলাকায় সার্ভেয়ারদের মাপঝোক করে সীমানা নির্ধারণ করতে দেখা গেছে। বুধবারও এই কাজ অব্যাহত থাকবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।
এলাকার নাগরিক সাংবাদিক মকসুদ আহমদ মকসুদ জানান, একসময় তেমুখি থেকে বাদাঘাট পর্যন্ত বিশাল খাল ছিল। কালের বিবর্তনে রাস্তার দু’পাশে মানুষজন খাল ভরাট করে বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণের কারণে পানি চলাচলের স্বাভাবিক পথ রুদ্ধ হয়ে গেছে, যার কারণে রাস্তার দু’পাশে কয়েক বছর ধরে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে বসতবাড়ি ডুবে মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা দুর্বিসহ হয়ে উঠেছে।
তিনি দ্রুততম সময়ের মধ্যে যথাযথভাবে খাল উদ্ধার কাজ সম্পন্ন করতে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে দাবি জানান।
সিলেট সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো মোস্তাফিজুর রহমান জানান, তারা সরকারি ভূমি চিহ্নিতকরণের কাজ শুরু করেছেন। পর্যায়ক্রমে বাকি কাজগুলোও সম্পন্ন করা হবে।
তেমুখি-বাদাঘাট, বিমানবন্দর চারলেন প্রকল্পের বিষয়ে তিনি জানান, টেন্ডার অনুমোদন হয়ে গেছে। কিছু জায়গায় ভূমি অধিগ্রহণ করা লাগতে পারে। সেই কাজগুলোও দ্রুত সম্পন্ন করে চারলেন প্রকল্পের কাজ শুরু করা হবে।।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More
স্বত্ব : খবরসবর ডট কম
Design & Developed by Web Nest