ভোগান্তিতে জকিগঞ্জের বিকাশ গ্রাহকরা : টাকা হাতিয়ে নিয়ে ডিস্টিবিউটর লাপাত্তা

Published: 11. Feb. 2021 | Thursday

জকিগঞ্জ (সিলেট) প্রতিনিধি : সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার বিকাশ গ্রাহকরা গত দুইমাস ধর চরম ভোগান্তিতে রয়েছেন। এজেন্ট পয়েন্টে গিয়ে কেউ টাকা তুলতে পারছেন না।
বিকাশ গ্রাহক আক্তারুজ্জামান জানান, জকিগঞ্জের প্রতিটি এজেন্ট পয়েন্ট ঘুরেও ২০ হাজার টাকা তুলতে পারেননি।
জকিগঞ্জ বাজারের বিকাশ এজেন্ট পয়েন্ট বাটা টেলিকম, জননী ফটোগ্রাফিক্স এন্ড টেলিকম, হাফসা টেলিকম, ইত্যাদি টেলিকম ও ভাই ভাই টেলিকমের মালিকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, জকিগঞ্জের বিকাশ ডিস্টিবিউটর গচিয়া ট্রেডিংয়ের মালিক ইয়ামিন আজমান গত ১৯ ডিসেম্বর থেকে এজেন্টদের নিকট হতে কয়েক লাখ টাকা বিটুবি নিয়ে আর ফেরত দেয়নি। অপরদিকে তাদের একাউন্টের জমা টাকাও উত্তোলন করতে ব্যর্থ হচ্ছেন। ফলে অনেক ব্যবসায়ী টাকার অভাবে ব্যবসা করতে পারছেন না।
বাটা টেলিকমের মালিক সুমন আহমদ জানান, বিকাশ ডিস্ট্রিবিউটরের কাছে তার বিটুবির দুই লাখ দশ হাজার টাকা পাওনা; কিন্তু বারবার যোগাযোগ করেও কোন লাভ হচ্ছে না।
জননী ফটোগ্রাফিক্স এন্ড টেলিকমের গৌরাঙ্গ বিশ্বাস, মনপুরা ফটোস্টেটের ফয়জুল হক, হাফসা টেলিকমের মোস্তফা আহমদ, মুসাফির স্টোরের আব্দুর রহমান ও মোবাইল সিটির সয়ফু আহমদ জানান, লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে গা ঢাকা দিয়েছেন বিকাশের ডিস্ট্রিবিউটর। এ ব্যাপারে বিকাশ অফিসে যোগাযোগ করেও তারা কোন সাড়া পাচ্ছেন না।
ব্যবসায়ীরা জানান, দীর্ঘদিন থেকেই ডিস্ট্রিবিউটর ব্যবসায়ীদের অগ্রিম বিটুবি দিতে বাধ্য করতেন। অগ্রিম বিটুবি না দিলে তিনি টাকা দিতেন না। এসব কারণে জকিগঞ্জ উপজেলার বিকাশ গ্রাহক ও বিকাশ ব্যবসায়ীরা ভোগান্তি পোহাচ্ছেন।
এ ব্যাপারে বিকাশের ডিস্ট্রিবিউটর ইয়ামিন আজমানের মুঠোফোনে বারবার যোগাযোগ করলেও তিনি কল গ্রহণ করেননি।
বিকাশ কাস্টমার কেয়ারে যোগাযোগ করলে তারা বলেন, এ অনাকাঙ্ক্ষিত সমস্যার ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট বিভাগকে অবগত করা হয়েছে।

Share Button
February 2021
M T W T F S S
« Jan    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728

দেশবাংলা