JUST NEWS
SYLHET RANGE DIG MOFIZ UDDIN AHMED PPM SAID THAT NO ONE HAS THE RIGHT TO DESTROY HARMONY IN BANGLADESH
সংবাদ সংক্ষেপ
Government has ensured equal rights for people of all religions: Nasir সরকার সকল ধর্মের মানুষের সমান অধিকার নিশ্চিত করেছে : নাসির No one has the right to destroy social harmony : Sylhet range DIG সামাজিক সম্প্রীতি নষ্ট করার অধিকার কারো নেই : শাল্লায় সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি মাধবপুরে জাতীয় কন্যা শিশু দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা সুনামগঞ্জে মহানবমীতে মণ্ডপে মণ্ডপে দেবীর চরণে পুষ্পাঞ্জলি অর্পণ মধ্যনগরে দুর্গোৎসবের মহানবমীতে প্রতিটি মণ্ডপে ব্যাপক ভক্ত সমাগম সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর বিভিন্ন এলাকার পূজামণ্ডপ পরিদর্শন গোলাপগঞ্জ উপজেলা যুব উন্নয়ন কার্যালয়ে নার্সারি প্রশিক্ষণ কর্মশালা দক্ষিণ সুরমায় কাঁশবন রাস্তা সংস্কার দাবিতে স্মারকলিপি পেশ নবীগঞ্জে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের দুর্গাপূজা পরিদর্শন আঞ্জুমানে হেফাজতে ইসলাম মহানগর শাখার কর্মী সম্মেলন সম্পন্ন শ্রীমঙ্গলে কুমারী পূজার আনন্দে মেতেছিলেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা মধ্যনগরে বংশীকুণ্ডা ইউনিয়ন যুবদলের পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত সিলেট কেন্দ্রীয় শহিদমিনার পুত-পবিত্রতা অক্ষুন্ন রেখেই মাথা উঁচু করে দাড়িয়ে থাকলো Kumari Puja held at Habiganj Ramakrishna Mission and Sewashram

বানিয়াচঙ্গে আ লীগ নেতাসহ একদিনে ২ জন খুন : ভাইয়ের হাতে প্রাণ গেলো ভাইয়ের

  • বৃহস্পতিবার, ২৩ জুলাই, ২০২০

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের বানিয়াচঙ্গে একদিনে ২টি খুনের ঘটনা ঘটেছে। এক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। এছাড়া ভাইয়ের হাতে ভাই খুন হয়েছেন।
পুলিশ জানায়, উপজেলার বড়ইউড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হলদারপুর গ্রামের মো কামাল মিয়াদের সাথে একই গ্রামের ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমানদের আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলছে। এর জের ধরে ২০১৭ সালের ১ সেপ্টেম্বর দুই পক্ষের সংঘর্ষে কামাল মিয়ার চাচাতো ভাই ইসলাম উদ্দিন মারা যান। এ ব্যাপারে দায়ের করা মামলায় কামাল মিয়া সাক্ষী হন। তিনি মামলাটি পরিচালনাও করতেন।
বুধবার সন্ধ্যার দিকে কামাল মিয়া নবীগঞ্জ থেকে মোটরসাইকেলে বাড়ি ফেরার সময় শিবগঞ্জ বাজারে প্রতিপক্ষের হামলায় গুরুতর আহত হন। তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে রাত ১১টার দিকে তিনি মারা যান।
নবীগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ আজিজুর রহমান জানান, এ হত্যাকাণ্ডের পর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান এলাকা ছেড়ে চলে গেছেন।
একইদিন রাতে উপজেলার চতুরঙ্গ রায়পাড়ায় এক ভাইয়ের হাতে আরেক ভাই খুন হয়েছেন।
নিহত আবু বকর (৩৮) গ্রামের মো ইউনুস আলীর ছেলে। তার বড় ভাই মো আলী আমজাদ জানান, তারা চার ভাই। এর মধ্যে আলী নেওয়াজ সবার ছোট। তিনি মানসিক ভারসাম্যহীন। বুধবার রাত ১০টার দিকে আলী নেওয়াজ ছুরি নিয়ে বড়বাজার শহীদ মিনারের কাছে যান। এসময় আবু বকর তাকে আনতে গেলে আলী নেওয়াজ ক্ষিপ্ত হয়ে ছুরি দিয়ে আবু বকরের নাকে আঘাত করেন। আশেপাশের লোকজন তাকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত ডাক্তার অপূর্ব দাস তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More
স্বত্ব : খবরসবর ডট কম
Design & Developed by Web Nest