বাংলাদেশের কাছে ভারতের ১০টি ব্রডগেজ লোকোমোটিভ হস্তান্তর

Published: 28. Jul. 2020 | Tuesday

বাংলাদেশকে ১০টি ব্রডগেজ লোকোমোটিভ দিয়েছে ভারত। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে রেলমন্ত্রী মো নূরুল ইসলাম সুজন ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড এ কে আব্দুল মোমেন সোমবার এগুলো গ্রহণ করেন।
এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড জয়শংকর এবং রেল, শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল লোকোমোটিভ গুলোর বাংলাদেশের উদ্দেশে যাত্রা সূচনা করেন। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, সে দেশের রেলপথ প্রতিমন্ত্রী অঙ্গদি সুরেশ।
ভারত সরকারের অনুদান সহায়তায় এই লোকোমোটিভগুলোর হস্তান্তর, ২০১৯ সালের অক্টোবরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরকালে করা একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিশ্রুতি পূরণ করে।
ভারতের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ রেলওয়ের প্রয়োজনীয়তা অনুসারে লোকোমোটিভগুলোকে যথাযথভাবে পরিবর্তন করা হয়েছে। এগুলো বাংলাদেশে যাত্রীবাহী ও মালবাহী ট্রেনের ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণে সহায়তা করবে।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড জয়শংকর পারস্পরিক বিশ্বাস ও শ্রদ্ধার ভিত্তিতে রচিত ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যকার কালোত্তীর্ণ সম্পর্কের গভীরতার কথা তুলে ধরেন।
কোভিড-১৯ মহামারীতেও দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার গতি হ্রাস না পাওয়ায় তিনি সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, চলমান ঐতিহাসিক মুজিববর্ষে তিনি এ জাতীয় আরও মাইলফলক অতিক্রম করার প্রত্যাশা করছেন।
রেলপথ, শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ও যোগাযোগ বৃদ্ধিতে এবং দু’দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক অংশীদারিত্বকে আরও জোরদার করতে রেল সহযোগিতার তাৎপর্যকে গুরুত্ব দেন।
সাম্প্রতিক সময়ে স্থল সীমান্ত দিয়ে বাণিজ্য বাধাগ্রস্ত হওয়ায় বাংলাদেশ ও ভারত কোভিড-১৯ মহামারীর প্রভাব হ্রাস করতে রেল সহযোগিতা আরও বৃদ্ধি করেছে। ব্যয় সাশ্রয়ী ও পরিবেশবান্ধব বাহন হিসাবে আন্তঃসীমান্ত পণ্য পরিবহণে সহায়তা করেছে রেল। জুন মাসে দু’দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মালবাহী ট্রেন চলাচল হয়েছিল। এসময় প্রয়োজনীয় পণ্য ও কাঁচামাল বহনের জন্য মোট ১০৩টি মালবাহী ট্রেন ব্যবহৃত হয়।
সম্প্রতি দুই বন্ধু দেশের মধ্যে পার্সেল এবং কনটেইনার ট্রেন পরিষেবাও শুরু হয়েছে। আশা করা হচ্ছে, এতে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যের সম্ভাবনা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পাবে।

Share Button
August 2020
M T W T F S S
« Jul    
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31  

দেশবাংলা