দ্রুত ও সাশ্রয়ী মূল্যে ইন্টারনেট সমাজের চাহিদা : পলিসি ডায়ালগে মোস্তফা জব্বার

Published: 28. Aug. 2021 | Saturday

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার বলেছেন, গ্রামীণ জনগণ তাদেরকে সংযোগের আওতায় আনার প্রত্যাশা করছে, বিশেষ করে তাদের সন্তানদের অনলাইন ক্লাসে অংশগ্রহণ করার জন্য। দ্রুত ও সাশ্রয়ী মূল্যে ইন্টারনেট সমাজের চাহিদা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই ইস্যুতে বিশেষ মনোযোগ ও দৃষ্টি দিয়েছেন। এক দেশে এক রেইট ঘোষণার উদ্যোগের মধ্যে সরকার সাশ্রয়ী ও দ্রুতগতির ইন্টারনেটের জন্য গ্রামাঞ্চলে অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য কাজ করছে।
বৃহস্পতিবার বিকেলে ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে বাংলাদেশ ইন্টারনেট গভর্নেন্স ফোরাম-বিআইজিএফ আয়োজিত ইন্টারনেট গভর্নেন্স পলিসি ডায়ালগে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।
অন্যান্য বক্তা বলেন, অন্তর্ভুক্তিমূলক ও সাশ্রয়ী মূল্যে সকলকে ইন্টারনেট সংযোগের আওতায় আনতে হবে।
ডায়ালগের মূল বিষয় ছিলো, অন্তর্ভুক্তিমূলক ও সাশ্রয়ী মূল্যে ইন্টারনেট সংযোগ, ইন্টারনেট পরিচালনার নীতিমালা ও ৫জি পর্যবেক্ষণ এবং সকলকে ইন্টারনেটের আওতায় নিয়ে আসা।
উদ্দেশ্য ছিলো, অন্তর্ভুক্তিমূলক ও সাশ্রয়ী মূল্যে ইন্টারনেট সংযোগ, ইন্টারনেট পরিচালনার নীতিমালা ও ৫জি পর্যবেক্ষণ সম্পর্কে আলোচনা করা, এ বিষয়ে জনমত তৈরি, জনগণের কণ্ঠকে জোরালো করার মাধ্যমে ক্ষমতায়ন করা, সকলকে ইন্টারনেট সংযোগের আওতায় নিয়ে আসা, টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট-এসডিজি-৯ বিশেষ করে লক্ষ্যমাত্রা ৯সিতে উল্লেখিত তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে প্রবেশাধিকার উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি করে স্বল্পোন্নত দেশে ইন্টারনেটের সার্বজনীন ব্যবহার ও সাশ্রয়ী মূল্যে ব্যবস্থা গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করা। এই সম্ভাব্যতা উপলব্ধি করার জন্য বাংলাদেশে ডিজিটাল অন্তর্ভুক্তি বাড়ানো অপরিহার্য, এই বিবেচনায় নির্ভরযোগ্য ও সাশ্রয়ী মূল্যের সংযোগে সরকারের সঙ্গে কাজ করা এবং সবাইকে ইন্টারনেট সংযোগের আওতায় নিয়ে আসা। বিটিআরসির মতে, ২০২১ সালের জানুয়ারি শেষে মোট ইন্টারনেট গ্রাহকের সংখ্যা ১১ কোটি ২০ লাখে পৌঁছেছে। বাংলাদেশ সরকার ৫জি চালু করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।
প্রযুক্তি শিল্পের বিশেষজ্ঞ ও ইন্টারনেট গভর্নেন্স কমিউনিটির অংশগ্রহণকারীবৃন্দ সংলাপে অংশ নেন। সরকার, নাগরিক সমাজ, প্রযুক্তিবিদ, শিক্ষাবিদ, যুবসমাজের প্রতিনিধি এবং গণমাধ্যমের প্রতিনিধিগণও এই ডায়ালগে অংশগ্রহণ করেন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন কোম্পানি লিমিটেড-বিটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড মো রফিকুল মতিন। আলোচকদের মধ্যে ফাইবারএটহোম লিমিটেডের চিফ টেকনোলজি অফিসার সুমন আহমেদ সাবির বলেন, সাশ্রয়ী মূল্যের ইন্টারনেট ও সংযোগের পাশাপাশি শহর ও গ্রামের মানুষের মাঝে ডিজিটাল বিভাজন ও বৈষম্য হ্রাস করতে হবে।
এশিয়া প্যাসিফিক ফেসবুকের হেড অব কানেক্টিভিটি পলিসি টম ভার্গিস বলেন, ফেসবুক মানুষের মাঝে সম্পর্ক গড়ে তুলতে সহায়তা করে বিশ্বকে সবার সঙ্গে সংযোগ স্থাপনের জন্য কাজ করছে। আমরা পরবর্তী প্রজন্মের প্রযুক্তির উন্নয়নে মনোনিবেশ করেছি, যা সংযোগের খরচ কমিয়ে আনতে সাহায্য করতে পারে এবং অন্য সবার জন্য ক্ষমতা ও কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি করতে পারে।
অ্যাসোসিয়েশন অফ মোবাইল টেলিকম অপারেটরস অব বাংলাদেশ-এমটব মহাসচিব অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম ফরহাদ কানেক্টিভিটি রেগুলেশন, ৫জি পর্যবেক্ষণ এবং ৩জি, ৪জি ও ৫জি এর বর্তমান অবস্থা তুলে ধরেন।
আইকানের ভারতের প্রধান সমীরণ গুপ্ত উল্লেখ করেন স্পেস বরাদ্দ, প্রোটোকল আইডেন্টিফায়ার অ্যাসাইনমেন্ট, জেনেরিক টপ লেভেল ডোমেইন নেম সিস্টেম ম্যানেজমেন্টের কান্ট্রি-কোড এর উপর কাজ করে।
টেলিকম রিপোর্টার্স নেটওয়ার্ক বাংলাদেশ-টিআরএনবির সভাপতি, সমকালের বিশেষ প্রতিবেদক রাশেদ মেহেদী নীতিগত বিষয়, অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য প্রযুক্তিগত দক্ষতা, ৫জি চালু, ডিজিটাল বিভাজন হ্রাস, দ্রুত গতির ইন্টারনেট ও অন্তর্ভুক্তিমূলক সংযোগের উপর জোর দিয়ে বিষয়টি বিবেচনার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।
ফরেন ইনভেস্টরস চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি-ফিকির নির্বাহী পরিচালক আইসিটি ও টেলিকম সেক্টর বিশেষজ্ঞ টি আই এম নূরুল কবির উল্লেখ করেন, সংশ্লিষ্ট সবাইকে সাশ্রয়ী ও দ্রুতগতির ইন্টারনেটের জন্য ৫জি, স্পেকট্রাম ও উচ্চ ফ্রিকোয়েন্স নিয়ে কাজ করতে হবে।
কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের উপাচার্য অধ্যাপক ড মোহাম্মদ মাহফুজুল ইসলাম সরবরাহকারী ও চাহিদা উভয়পক্ষের মধ্যে সমন্বয় গুরুত্বপূর্ণ বলে উল্লেখ করেন।
বাংলাদেশের ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আমিনুল হাকিম ডিজিটাল বিভাজন কমানো ও গ্রামাঞ্চলে ব্রডডব্যান্ড সমর্থন নিশ্চিত করার উপায় তুলে ধরেন।
আমাদের গ্রামের পরিচালক ও জাতিসংঘ তথ্যসমাজ বিষয়ক বিশ্ব সম্মেলনের সাবেক দক্ষিণ এশিয়ার সমন্বয়কারী রেজা সেলিম ব্রডব্যান্ড কমিশন ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্টের ২০২৫ বৈঠকের লক্ষ্যমাত্রা, সংযোগ, সাশ্রয়ী প্রবেশাধিকার, সমতা ও সবার জন্য ব্যবহারযোগ্য বিষয়ের ওপর আলোচনা করেন।
নিরাপদ সংযোগ এবং একটি সচেতন ও শিক্ষিত সমাজের জন্য অনলাইন পরিষেবাগুলোর সাশ্রয়ী মূল্যের অ্যাক্সেস ও নিরাপদ ব্যবহার গুরুত্বপূর্ণ বলে তিনি অভিমত রাখেন।
বিশেষ অতিথি বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশন-বিটিআরসির ভাইস চেয়ারম্যান সুব্রত রায় মৈত্র অন্তর্ভুক্তিমূলক ও সাশ্রয়ী ইন্টারনেটের জন্য সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ এবং গ্রামীণ জনগোষ্ঠীকে সংযোগের আওতায় আনার বিষয়ে আলোচনা করেন।
ডায়ালগের সভাপতি তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, ইন্টারনেট সমাজে একটি বিপ্লব সৃষ্টি করেছে। অন্তর্ভুক্তিমূলক, সাশ্রয়ী ও দ্রুত গতির ইন্টারনেট সংযোগ গুরুত্বপূর্ণ এবং নীতিনির্ধারক ও দায়িত্বপ্রাপ্তদের শহর ও গ্রামাঞ্চলের মধ্যে ডিজিটাল বিভাজন কমাতে কাজ করার জন্য আরও দায়িত্ব নিতে হবে। ডিজিটাল বিভাজন ও বৈষম্য হ্রাস এবং বহু-অংশীদারদের অংশগ্রহণ প্রয়োজন। সমাজের সকল সেক্টরকে ডিজিটালাইজেশন করার জন্য সকলের কাজ করা উচিত।
সংলাপের সঞ্চালক বাংলাদেশ এনজিওস নেটওয়ার্ক ফর রেডিও অ্যান্ড কমিউনিকেশন-বিএনএনআরসি প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ এইচ এম বজলুর রহমান সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে ইনটারনেট সংযোগের আওতায় আনার জন্য মনোনিবেশ করার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন।
বাংলাদেশ ইন্টারনেট গভর্নেন্স ফোরামের মহাসচিব জনাব মোহাম্মদ আবদুল হক অনু আয়োজনের সমন্বয় করেন।-সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

Share Button
September 2021
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
27282930  

দেশবাংলা