দোকানপাট খোলার পর দেশে বাড়তে শুরু করেছে ‘করোনা’ সংক্রমণ

Published: 13. May. 2020 | Wednesday

নিজস্ব প্রতিবেদক : যে আশংকা করা হচ্ছিল তাই হতে যাচ্ছে। আশংকাটি ছিল, ‘করোনা’ বিপর্যয়কালে দোকানপাট খুললে সংক্রমণ বেড়ে যাবে। আসলেও বেড়ে যাচেছ।
সরকার ১০ মে থেকে দোকানপাট খোলার উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়। বলা হয়, অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে শপিংমল ও বিপণিবিতান সহ দোকানপাট খোলা যেতে পারে।
উল্লেখ্য, কাঁচাবাজার, মুদিদোকান ও ফার্মেসির উপর কোন নিষেধাজ্ঞা ছিলনা। এসব দোকানপাট প্রথম থেকেই খোলা ছিল।
এদিকে ঢাকার শীর্ষস্থানীয় বিভিন্ন শপিংমল ও নিউ মার্কেট সহ বিভিন্ন বিপণিবিতান কর্তৃপক্ষ ও ব্যবসায়ী সংগঠন ‘করোনা’ সংক্রমণ ঝুঁকি এড়াতে দোকানপাট না খোলার সিদ্ধান্ত নেয়।
একই রকম সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বন্দর নগরী চট্টগ্রাম ও আধ্যাত্মিক পর্যটন নগরী সিলেট সহ দেশের বিভিন্ন জেলায়। তবে কিছু জেলার ব্যবসায়ীসমাজ দোকানপাট খোলার পক্ষে অবস্থান নেয়। তখন থেকেই দেশে ‘করোনা’ সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার আশংকা জেগে উঠে।
সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি, সিলেট মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি ও মহানগর ব্যবসায়ী ঐক্যকল্যাণ পরিষদ নেতৃবৃন্দকে নিয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী সভা করেছিলেন ৮ মে। তাতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল, মহানগরীতে পবিত্র ঈদুল ফিতর পর্যন্ত বন্ধ দোকানগুলো বন্ধই থাকবে। এতে স্বস্তির নিশ্বাস ফেলেছিলেন নগরবাসী। অভিনন্দন জানিয়েছিলেন ব্যবসায়ীবৃন্দকে; কিন্তু শেষপর্যন্ত সিদ্ধান্তটি সর্বসম্মত বলে প্রমাণিত হয়নি। কারণ হাসান মার্কেট, সিটি সুপার মার্কেট ও হকার্স মার্কেটে চুটিয়ে ঈদের কেনাকাটা চলছে। ফুটপাতেও বেচাকেনার কমতি নেই।
একই চিত্র রাজধানী ঢাকার অংশবিশেষ সহ দেশের আরো কয়েকটি জেলায়; কিন্তু স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের বালাই নেই কোথাও। ফলে ‘করোনা’ সংক্রমণ বেড়ে যেতে শুরু করেছে। স্বাস্থ্য অধিদফতরের বুধবারের দেয়া তথ্য অনুযায়ী ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ১৯ জন। আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ১শ ৬২। এ অবস্থায় বিষয়টি নিয়ে নতুন করে চিন্তাভাবনা করা জরুরি হয়ে উঠেছে।

Share Button
May 2020
M T W T F S S
« Apr    
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031

দেশবাংলা