JUST NEWS
SECENDERY SCHOOL CERTIFICATE-SSC EXAM RESULTS PUBLISHED ACROSS THE COUNTRY: PASS RATE IN SYLHET EDUCATION BOARD IS 78.82 PERCENT
সংবাদ সংক্ষেপ
সিলেট জেলা প্রশাসন এবারও বর্ণাঢ্য আয়োজনে বরণ করবে মহান বিজয়ের মাসকে SCC will formulate a realistic and far-reaching budget সিলেট গ্যাস ফিল্ডস’ সিবিএ নির্বাচনে কর্মচারী লীগের জয় লাভ আল-কবির টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটির ভর্তিমেলার মেয়াদ বৃদ্ধি দিলোয়ারের পিতার মৃত্যুতে বিএনপি নেতৃবৃন্দের শোক প্রকাশ নতুন সদস্য নিচ্ছে সিলেটে টেলিভিশন সাংবাদিকদের সংগঠন ইমজা সিলেটে ভারতীয় নাট্য গবেষকদের নিয়ে সুবর্ণযাত্রার ‘একান্ত আলাপন’ মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটিতে অনুষ্ঠিত হলো সংসদীয় বিতর্ক সাংবাদিক আহমেদ ইমরানকে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সংবর্ধনা মহান বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে জকিগঞ্জে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত সিসিক নাগরিকদের মতামতের ভিত্তিতে বাস্তবসম্মত ও সুদূরপ্রসারী বাজেট প্রণয়ন করবে : মেয়র সমাজ বিনির্মাণে বাউলদেরও অবদান রয়েছে : নাসির উদ্দিন খান মাহা-সিলেট জেলা প্রেসক্লাব অভ্যন্তরীণ ক্রীড়ার মঙ্গলবারের ফল সিলেটে অবৈধভাবে মেলার আয়োজন করতে না দেওয়ার আহ্বান চেম্বারের দোয়ারায় ছোট ভাই খুনের মামলায় বড় ভাইকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় হবিগঞ্জের দুই সাংবাদিকের জামিন মঞ্জুর

জয় নিয়ে দেশে ফিরলেও ঘরে ফেরা হলোনা যে বীর সন্তানদের

  • মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৭

বিশেষ প্রতিবেদক : মৌলভীবাজারবাসীর কাছে ২০ ডিসেম্বর শোকের একটি দিন। সদ্য স্বাধীন দেশে এমন একটি দিনের দেখা পাওয়া ছিল কল্পনার অতীত। তাই মনু পাড়ের মানুষ বর্ষ পরিক্রমায় দিনটি এতেই শোকে কাতর হয়ে যান।
১৯৭১ সালের ৮ ডিসেম্বর মৌলভীবাজার পাকিস্তানি হানাদার মুক্ত হয়। তৎকালীন এ মহকুমা শহরে ফিরতে থাকেন দলে দলে মুক্তিযোদ্ধারা। ১৬ ডিসেম্বর শত্রুদের আত্মসমপর্ণের পর মুক্ত আকাশে পত পত করে ওড়তে থাকে লাল সবুজের পতাকা। আর তা দেখে পোড়া মাটির উপরে দাঁড়িয়ে সবাই নয় মাসের কষ্টের দিনগুলোর কথা ভুলতে চেষ্টা করতে থাকে।
মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে স্থাপন করা হয় মুক্তিযোদ্ধাদের ক্যাম্প। মুক্তিযুদ্ধের সময় বিভিন্নস্থানে পাকিস্তান হানাদার সেনাদের পুঁতে রাখা স্থল মাইন এনে মজুদ করা হয় সেখানে। ২০ ডিসেম্বর এ মজুদ থেকেই ঘটে ভয়াবহ বিস্ফোরণ। টুকরো টুকরো হয়ে যায় আশেপাশে থাকা মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের সাথে দেখা করতে আসা প্রিয়জনদের দেহ। উড়ে যায় ঘরের চাল। পরে শরীরের ছিন্ন ভিন্ন অংশগুলো একত্রিত করে সমাহিত করা হয়। তবে কতজন সেদিন শহীদ হয়েছিলেন সেই সংখ্যা এখনো নির্ধারণ করা যায়নি।
প্রিয় স্বদেশের স্বাধীনতার লাল সূর্য হাতে বিজয়ীর বেশে দেশে ফিরেছিলেন এই বীর জওয়ানরা। এবার ছিল স্বস্তিতে নিশ্বাস ফেলা। কয়েকটি দিন নিশ্চিন্ত মনে সময় কাটানোর। খবর পেয়ে ছুটে এসেছিলেন, প্রিয়জনরা খোঁজখবর নিতে। তাদেরকে আশ্বস্ত করেছিলেন, খুব শিগগির ঘরে ফিরবেন; কিন্তু হলোনা। বরং সেই প্রিয়জনদের কয়েকজনও এই ভয়ঙ্কর ঘটনায় প্রাণ হারান। এ ঘটনায় গোটা শহর স্তম্ভিত হয়ে যায়।
মৌলভীবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের দক্ষিণ-পূর্ব অংশে কেন্দ্রীয় শহীদমিনারের পাশে সবার খণ্ড বিখণ্ড দেহগুলো সমাধিস্থ করা হয়। ২০০১ সালের ২০ ডিসেম্বর তৎকালীন পৌর চেয়ারম্যান মাহমুদুর রহমান এই বীর শহীদদের নামফলকটি উদ্বোধন করেন। এতে নাম রয়েছে ২৪ জনের। তারা হলেন : ১. শহীদ সুলেমান মিয়া, ফেঞ্চুগঞ্জ, সিলেট, ২. শহীদ রহিম বক্স খোকা, পিতা তাহের বক্স, শাহ মোস্তফা রোড, মৌলভীবাজার, ৩. শহীদ ইয়ানুর আলী, পিতা মো লোকমান মিয়া, লালারচক, তেলিবিল, কুলাউড়া, মৌলভীবাজার, ৪. শহীদ আছকর আলী, পিতা হামিদ উল্লা, মনোহরপুর, শরীফপুর, কুলাউড়া, মৌলভীবাজার, ৫. শহীদ জহির মিয়া, পিতা আফতাব মিয়া, লালারচক, তেলিবিল, কুলাউড়া, মৌলভীবাজার, ৬. শহীদ ইব্রাহিম আলী, পিতা ইউনুছ মিয়া, মনোহরপুর, শরীফপুর, কুলাউড়া, মৌলভীবাজার, ৭. শহীদ আব্দুল আজিজ, পিতা আলাউদ্দিন, কৃষ্ণপুর, কমলগঞ্জ, মৌলভীবাজার, ৮. শহীদ প্রদীপ চন্দ্র দাস, পিতা পরেশ চন্দ্র দাস, টেংরাবাজার, রাজনগর, মৌলভীবাজার, ৯. শহীদ শিশির রঞ্জন দেব, পিতা শশী মোহন দেব, শ্বাসমহল, রাজনগর, মৌলভীবাজার, ১০. শহীদ সত্যেন্দ্র দাস, পিতা সুরেশ চন্দ্র দাস, ধুলিজুড়া, রাজনগর, মৌলভীবাজার, ১১. শহীদ অরুণ দত্ত, পিতা অবনী দত্ত, শ্বাসমহল, রাজনগর, মৌলভীবাজার, ১২. শহীদ দিলীপ দেব, পিতা অতুল চন্দ্র দেব, রাজখলা, রাজনগর, মৌলভীবাজার, ১৩. শহীদ সনাতন সিংহ, পিতা বাবু সেনা সিংহ, নলডরি, কুলাউড়া, মৌলভীবাজার, ১৪. শহীদ নন্দলাল বাউরী, পিতা সুবল বাউরী, চাতলাপুর, কমলগঞ্জ, মৌলভীবাজার, ১৫. শহীদ সমীর চন্দ্র সোম, পিতা সুবীর কুমার সোম, জালালিয়া রোড, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার, ১৬. শহীদ কাজল পাল, নয়াসড়ক, সিলেট। ১৭. শহীদ হিমাংশু কর, পিতা মনধন কর, সাবিয়া, চাঁদনীঘাট, মৌলভীবাজার, ১৮. শহীদ জিতেন্দ্র চন্দ্র দেব, পিতা কুমুদ চন্দ্র দেব, মাতারকাপন, মৌলভীবাজার, ১৯. শহীদ আব্দুল আলী, পিতা হবিব উল্লা, লালারচক, তেলিবিল, কুলাউড়া, মৌলভীবাজার, ২০. শহীদ নরুল ইসলাম, থানা ও জেলা ময়মনসিংহ, ২১. শহীদ মোস্তফা কামাল, থানা ও জেলা ময়মনসিংহ, ২২. শহীদ আশুতোষ দেব, পিতা ঠাকুরমনি দেব, ইছবপুর, শ্রীমঙ্গল, মৌলভীবাজার, ২৩. শহীদ তরণী দেব, পিতা নর্মদা চরণ দেব, টেংরাবাজার, রাজনগর, মৌলভীবাজার ও ২৪. শহীদ নরেশ চন্দ্র ধর, পিতা ইন্দ্রমনি ধর, কামালপুর, মৌলভীবাজার।
এই স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে এবারো মৌলভীবাজারবাসী সেই প্রিয় সন্তানদের স্মরণ করবেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More

লাইক দিন সঙ্গে থাকুন

স্বত্ব : খবরসবর ডট কম
Design & Developed by Web Nest