JUST NEWS
IF THE DEMANDS ARE NOT MET TRANSPORT WORKERS STRIKE ON SYLHET-ZAKIGANJ ROUTE WILL START FROM MONDAY
সংবাদ সংক্ষেপ
বিশ্বনাথবাসীর একজন সাইদুর রহমান সাঈদ আছেন || গুণীজনের কদরও জানেন তারা বাংলাদেশ ও ভারতের সম্পর্ক শুধু ভৌগোলিক নয়-আত্মিকও কামাল হত্যার বিচার দাবিতে তিন ওয়ার্ড বিএনপি পরিবারের মানববন্ধন দাবি পূরণ না হলে সোমবার থেকে সিলেট-জকিগঞ্জ রুটে পরিবহন শ্রমিক কর্মবিরতি শুরু কারামুক্ত সিলেট বিএনপির তিন নেতাকে সংবর্ধনা জ্ঞাপন লাগামহীন দুর্নীতির কারণে দেশ তলাবিহীন ঝুড়িতে পরিণত হয়েছে নবীগঞ্জে জাঁকজমকভাবে জ্ঞান ও বিদ্যাদেবী সরস্বতীর পূজা অনুষ্ঠিত নবীগঞ্জে জামিআ আরাবিয়া দিনারপুর মাদরাসার ইসলামী সম্মেলন দক্ষিণ সুরমার পিরোজপুরে ফ্রি-মেডিক্যাল ক্যাম্প ও শীতবস্ত্র বিতরণ সাংস্কৃতিক জাগরণে সকল অপশক্তিকে প্রতিহত করে ‘স্মার্ট’ বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার অঙ্গীকার জামেয়া আমিনিয়া মংলিপার মাদরাসার ওয়াজ মাহফিল অনুষ্ঠিত লাউয়াইতে তৈমুর খান বাদশাই স্মৃতি মিনি ফুটবল টুর্নামেন্ট শুরু লন্ডনে ‘রাউই’ নাশীদ ব্যান্ডের অভিষেক ও সাংস্কৃতিক সন্ধা অনুষ্ঠিত কাজিরবাজারে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে সিলেট মহানগর জামায়াত গোয়াইনঘাটে সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি ও ৮ জুয়াড়ি গ্রেফতার জাতীয় গ্রন্থাগার দিবস উপলক্ষ্যে চিত্রাঙ্কন বইপাঠ ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতা

ছাঁদুয়া নিঃসৃত রস পেটে না পড়লে নাকি কাজের গতি পায় না চা শ্রমিকরা

  • শনিবার, ৫ নভেম্বর, ২০১৬

জালাল আহমদ, বড়লেখা : মদ এবং তাড়ির পাশাপাশি নেশায় বুঁদ হয়ে থাকার জন্য চা শ্রমিকদের ব্যবহৃত অন্য উপকরণের নাম হচ্ছে ছাঁদুয়া। এই ছাঁদুয়া নিঃসৃত রস পেটে না পড়েলে কাজে গতি আসে না বলে একটি মিথ চালু আছে চা শ্রমিক সমাজে। তামাক পাতাকে তাঁতিয়ে গুঁড়ো করে এর সাথে চুন মিশিয়ে হাতের তালুতে ডলে তৈরি করা হয় এক ধরনের মিশ্রণ। এই মিশ্রণকে ট্যাবলেটের মতে করে জিহ্বার নিচে রেখে কর্মক্ষেত্রে ঝাঁপিয়ে পড়ে চা শ্রমিকরা।
চা বাগানে পাতা প্যাকিংরত নারী শ্রমিক থেকে শুরু করে ক্ষেতে খামারে কর্মরত পুরুষ শ্রমিকরাও ছাঁদুয়া সেবনে অভ্যস্ত। নেশায় বুঁদ হয়ে থাকার জন্য রাতে চোলাই মদ ও তাড়ি এবং দিনের কর্ম-কোলাহলে কাজে নিয়োজিত থাকার জন্য শতাধিক বছর আগেই ছাঁদুয়া সেবনের অভ্যাস রপ্ত করানো হয়েছিলো চা শ্রমিকদের।
চা শ্রমিকদের সাথে আলাপকালে জানা গেছে, মৌলভীবাজার তথা সিলেট অঞ্চলে চা বাগানের গোড়াপত্তন কাল থেকেই কর্মরত শ্রমিকরা ছাঁদুয়া সেবনে অভ্যস্ত ছিলো। এখন বংশ পরম্পরায় এর ব্যবহার অব্যাহত আছে।
কমলগঞ্জের একটি চা বাগানের মহিলা শ্রমিক ইন্দুবালা নাড়ু জানান, ‘ছাঁদুয়া না হইলে কামে মৌজ আসে না বাবু।’
লাকড়ি তৈরিতে নিয়োজিত চা শ্রমিক মিলু কাহান জানায়, ‘ছাঁদুয়া হইলো গিয়া টনিক। দেখেন না কিভাবে কুড়াল মারতেছি।’
মৌলভী চা বাগানের ব্যবস্থাপক মামুনুর রশিদ জানান, ছাঁদুয়া সেবনের পর চা শ্রমিক মহিলারা ঘণ্টায় ৪ গ্লাস পানি পান করে। পাহাড়ি জোঁকের গায়ে ছাঁদুয়া প্রয়োগ করলে ৫/৭ মিনিট ছটফট করেই জোঁক মারা যায়। অথচ চা শ্রমিকরা এই দ্রবণ সেবনের পর কিভাবে গতি সঞ্চয় করে তা বলা মুশকিল।
মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের ডা জিল্লুল হক জানান, তামাক পাতা ও চুন উভয়টি ক্ষতিকারক। এর মিশ্রণ সেবনে আমেজ অনুভূত হলেও এক সময় সেবনকারীর পাকস্থলি ও যকৃতের ক্ষমতা নষ্ট হয়ে যায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More

লাইক দিন সঙ্গে থাকুন

স্বত্ব : খবরসবর ডট কম
Design & Developed by Web Nest