NATIONAL
Prime Minister Sheikh Hasina said that by ensuring education, health and other basic rights for the large number of people in the world, they should be converted into public resources || প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিশ্বের বিপুল সংখ্যক জনগোষ্ঠীর জন্য প্রয়োজনীয় শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও অন্যান্য মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করার মাধ্যমে তাদেরকে জনসম্পদে রূপান্তর করতে হবে
সংবাদ সংক্ষেপ
জকিগঞ্জে মাছ ধরতে গিয়ে বজ্রপাতে এক কিশোরের মৃত্যু শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে সিকৃবি ছাত্রলীগের শোভাযাত্রা ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর থেকে ৯৮৯০ পিস ইয়াবাসহ একজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব ফেসবুকে ও ইউটিউবে মুক্ত হলো শাল্লার তরুণ সাংবাদিক বিপ্লবের লেখা গান ঝুঁকিমুক্ত আর্থিক ব্যবস্থার লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু জীবন বীমা কর্পোরেশন প্রতিষ্ঠা করেন : মেয়র শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে মহানগর আ লীগের দোয়া মাহফিল আইজিপি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন সুনামগঞ্জ আসছেন শুক্রবার মাথা নত না করে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে নিয়ে নিজেদের সিদ্ধান্তে অটল থাকি : শফিক চৌধুরী সুনামগঞ্জ পৌরসভা পরিচালিত বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ড্রেস প্রদান জুড়ীতে দুদিনব্যাপী মণিপুরী ফেস্টিভেল ও ইন্দো-বাংলা সাংস্কৃতিক উৎসব অনুষ্ঠিত বিপিজেএর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইউসুফকে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের অভিনন্দন সিলেটে ওয়ার্ল্ডভিশন বাংলাদেশের শিশু ও যুবদের নিয়ে সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ সিলেটে ওয়ার্ল্ডভিশন বাংলাদেশের শিশু ও যুবদের নিয়ে সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ সিকৃবিতে এডভান্সড কৃষি গবেষণা শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলন ২৩ মে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন : মাজার জিয়ারত করে আনহার মিয়ার প্রচারণা শুরু ইউপি চেয়ারম্যানদের জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় আরও সক্রিয় হতে হবে

ছাঁদুয়া নিঃসৃত রস পেটে না পড়লে নাকি কাজের গতি পায় না চা শ্রমিকরা

  • শনিবার, ৫ নভেম্বর, ২০১৬

জালাল আহমদ, বড়লেখা : মদ এবং তাড়ির পাশাপাশি নেশায় বুঁদ হয়ে থাকার জন্য চা শ্রমিকদের ব্যবহৃত অন্য উপকরণের নাম হচ্ছে ছাঁদুয়া। এই ছাঁদুয়া নিঃসৃত রস পেটে না পড়েলে কাজে গতি আসে না বলে একটি মিথ চালু আছে চা শ্রমিক সমাজে। তামাক পাতাকে তাঁতিয়ে গুঁড়ো করে এর সাথে চুন মিশিয়ে হাতের তালুতে ডলে তৈরি করা হয় এক ধরনের মিশ্রণ। এই মিশ্রণকে ট্যাবলেটের মতে করে জিহ্বার নিচে রেখে কর্মক্ষেত্রে ঝাঁপিয়ে পড়ে চা শ্রমিকরা।
চা বাগানে পাতা প্যাকিংরত নারী শ্রমিক থেকে শুরু করে ক্ষেতে খামারে কর্মরত পুরুষ শ্রমিকরাও ছাঁদুয়া সেবনে অভ্যস্ত। নেশায় বুঁদ হয়ে থাকার জন্য রাতে চোলাই মদ ও তাড়ি এবং দিনের কর্ম-কোলাহলে কাজে নিয়োজিত থাকার জন্য শতাধিক বছর আগেই ছাঁদুয়া সেবনের অভ্যাস রপ্ত করানো হয়েছিলো চা শ্রমিকদের।
চা শ্রমিকদের সাথে আলাপকালে জানা গেছে, মৌলভীবাজার তথা সিলেট অঞ্চলে চা বাগানের গোড়াপত্তন কাল থেকেই কর্মরত শ্রমিকরা ছাঁদুয়া সেবনে অভ্যস্ত ছিলো। এখন বংশ পরম্পরায় এর ব্যবহার অব্যাহত আছে।
কমলগঞ্জের একটি চা বাগানের মহিলা শ্রমিক ইন্দুবালা নাড়ু জানান, ‘ছাঁদুয়া না হইলে কামে মৌজ আসে না বাবু।’
লাকড়ি তৈরিতে নিয়োজিত চা শ্রমিক মিলু কাহান জানায়, ‘ছাঁদুয়া হইলো গিয়া টনিক। দেখেন না কিভাবে কুড়াল মারতেছি।’
মৌলভী চা বাগানের ব্যবস্থাপক মামুনুর রশিদ জানান, ছাঁদুয়া সেবনের পর চা শ্রমিক মহিলারা ঘণ্টায় ৪ গ্লাস পানি পান করে। পাহাড়ি জোঁকের গায়ে ছাঁদুয়া প্রয়োগ করলে ৫/৭ মিনিট ছটফট করেই জোঁক মারা যায়। অথচ চা শ্রমিকরা এই দ্রবণ সেবনের পর কিভাবে গতি সঞ্চয় করে তা বলা মুশকিল।
মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের ডা জিল্লুল হক জানান, তামাক পাতা ও চুন উভয়টি ক্ষতিকারক। এর মিশ্রণ সেবনে আমেজ অনুভূত হলেও এক সময় সেবনকারীর পাকস্থলি ও যকৃতের ক্ষমতা নষ্ট হয়ে যায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More

লাইক দিন সঙ্গে থাকুন

স্বত্ব : খবরসবর ডট কম
Design & Developed by Web Nest