JUST NEWS
TODAY WORLD TOURISM DAY IS BEING CELEBRATED IN VARIOUS PROGRAMS ACROSS THE COUNTRY INCLUDING SYLHET
সংবাদ সংক্ষেপ
বিশ্বনাথ উপজেলা জাতীয় পার্টির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত খন্দকার মুক্তাদিরের সুস্থতা কামনায় গোয়াইনঘাটে বিএনপির দোয়া মাহফিল দারুল আইতাম হালিমাতুস সাদিয়া এতিমখানায় অভিভাবক সমাবেশ পর্যটন উন্নয়ন মহাপরিকল্পনায় কক্সবাজারের পরেই থাকছে সিলেট : বিভাগীয় কমিশনার ডিআইজির সঙ্গে সিলেট উইমেনস জার্নালিস্ট ক্লাবের সৌজন্য সাক্ষাত বালাগঞ্জ সরকারি কলেজে মহিউদ্দিন শীরু স্মরণে আলোচনা সভা নাসিব ও এনপিওর উৎপাদনশীলতার গুরুত্ব নিয়ে সেমিনার পরিবেশ ও প্রতিবেশের ক্ষতিসাধন : সাড়ে ৪ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ ধার্য শারদীয় দুর্গোৎসব : রাজনগরে ৭৭টি পূজামণ্ডপে অনুদান বিতরণ সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে লায়ন্স ক্লাব অব সিলেট সুরমার বৃক্ষরোপণ শুরু সিলেট মোবাইল পাঠাগারের ৭৯৪ তম সাহিত্য আসর অনুষ্ঠিত শাল্লায় কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তি বিষয়ক দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ মহিউদ্দিন শীরুর মৃত্যুবার্ষিকীতে জেলা প্রেসক্লাবের শ্রদ্ধা নিবেদন লাখাই বিএনপির মতবিনিময় সভায় খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার ঘোষণা জগন্নাথপুরে ‘পিউরিয়া’ ফুড প্রোডাক্টের আউটলেট উদ্বোধন জগন্নাথপুরে মায়ের মরদেহ ঘরে রেখে এসএসসি পরীক্ষা দিলো মেয়ে

গণমানুষের কবি দিলওয়ারের ৮১তম জন্মদিন রবিবার

  • শুক্রবার, ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৬

গণমানুষের কবি দিলওয়ারের ৮১তম জন্মদিন ১লা জানুয়ারি রবিবার।
এ উপলক্ষে কবি দিলওয়ার পরিষদের উদ্যোগে সকাল ৯টায় কবির সমাধিস্থলে (মহানগরীর ভার্থখলায় কবি ভবনের সামনে) শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হবে।
সুরমা নদীর দক্ষিণপাড়ের ভার্থখলা গ্রামে ১৯৩৭ সালের এ দিনে তার জন্ম। পুরো নাম দিলওয়ার খান। ডাক নাম ছিল দিলু। পিতা মৌলভী মোহাম্মদ হাসান খান এবং মাতা রহিমুন্নেসা। পার্শ্ববর্তী ঝালোপাড়া পাঠশালা থেকে প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করে রাজা জি সি হাই স্কুল থেকে মেট্রিকুলেশন পাশ করেন তিনি ১৯৫২ সালে। উচ্চ মাধ্যমিক উত্তীর্ণ হন ১৯৫৪ সালে এম সি কলেজ থেকে। এরপর শারীরিক অসুস্থতার কারণে লেখাপড়ায় ইতি টানেন।
দক্ষিণ সুরমা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসেবে দিলওয়ারের কর্মজীবন শুরু; কিন্তু শিক্ষকতার স্থায়িত্বকাল মাত্র দুই মাস। এরপর শুরু হয় তার সাংবাদিকতা জীবন। ১৯৬৭ সাল থেকে ১৯৬৯ সাল পর্যন্ত ছিলেন দৈনিক সংবাদের সহকারী সম্পাদক। ১৯৬৯ সাল থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত সম্পাদনা করেন সমস্বর। ১৯৭৩ সাল থেকে ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন দৈনিক গণকন্ঠের সহকারী সম্পাদক হিসেবে। ১৯৭৪ সালে সিনিয়র ট্রান্সলেটর হিসেবে যোগ দেন মাসিক উদয়নে। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে উল্লাস, মৌমাছি, গ্রাম সুরমার ছড়া, মরুদ্যান ও সময়ের ডাক সম্পাদনা করেন।
কবি দিলওয়ারের লেখা ‘তুমি রহমতের নদীয়া’ গান দিয়ে সিলেট বেতার কেন্দ্র উদ্বোধন করা হয়। তিনি সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার বাস্তবায়ন পরিষদের আহবায়ক, খেলাঘর জেলা কমিটর সভাপতি, উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর সভাপতি, ভার্থখলা স্বর্ণালী সংঘের প্রতিষ্ঠাতা এবং স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের গীতিকার ও অবিধায় চিরস্মরণীয় হয়ে আছেন। তার ১২টি কাব্যগ্রন্থ, ২টি গানের বই; ২টি প্রবন্ধ গ্রন্থ, ২টি ছড়ার বই, দিলওয়ার রচনা সমগ্র ১ম খণ্ড, দিলওয়ার রচনা সমগ্র ২য় খণ্ড এবং ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রীর ডাকে (সংবর্ধনা স্মৃতিচারণ-২০০১) প্রকাশিত হয়েছে।
মহান মুক্তিযুদ্ধে অবদানের জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সরকার তাকে রাজনৈতিক পেনশন দিয়েছিলেন; কিন্তু পরবর্তী বিভিন্ন সরকার পেনশনের ধরন পরিবর্তনের জন্যে তিনি তা প্রত্যাখ্যান করেন।
গণমানুষের কবি দিলওয়ার একুশে পদক সহ অনেক সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More
স্বত্ব : খবরসবর ডট কম
Design & Developed by Web Nest