JUST NEWS
IN SYLHET TILL 8 AM ON SATURDAY 2 PEOPLE DIED DUE TO CORONA IN 24 HOURS : INFECTED 5 PEOPLE : DETECTION RATE 07.46
সংবাদ সংক্ষেপ
লাখাই বিএনপির মতবিনিময় সভায় খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার ঘোষণা জগন্নাথপুরে ‘পিউরিয়া’ ফুড প্রোডাক্টের আউটলেট উদ্বোধন জগন্নাথপুরে মায়ের মরদেহ ঘরে রেখে এসএসসি পরীক্ষা দিলো মেয়ে সুনামগঞ্জে যুবদলের বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের বাঁধা ও হাতাহাতি সিলেট জেলা পরিষদ নির্বাচন থেকে সরে গেলেন ৭ সদস্য পদপ্রার্থী নদীগুলো বেঁচে না থাকলে দেশ অচল হয়ে যাবে : বিশ্ব নদী দিবসে জেলা প্রশাসক শারদীয় দুর্গোৎসব : মাধবপুরে নানা আয়োজনে মহালয়া অনুষ্ঠিত শেখ হাসিনার জন্মদিনে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের কর্মসূচি বিশেষ ট্রাইব্যুনাল করে জামাত-শিবির চক্রের সকল হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি জাসদের শাল্লায় বর্ণাঢ্য কর্মসূচিতে উদযাপিত হলো মিনা দিবস ২০২২ মাধবপুরে ইউপি নির্বাচনে বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক আহত লাক্কাতুরা চা বাগানে ‘লাকড়ি তোড়া’র স্থানে সীমানা দেয়াল নির্মাণ দাবি সামাজিক বন্ধনের ধারাবাহিকতা অক্ষুন্ন রাখার আহবানে মৌলভীবাজারে সম্প্রীতি সমাবেশ সিলেটে টিলা কাটার অপরাধে ৪ জনের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড শাল্লায় ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদেরকে উপজেলা প্রশাসনের সহায়তা প্রদান মাধবপুরে জেলা পরিষদ সদস্য প্রার্থীর নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা

উৎসবমুখর পরিবেশে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের দ্বিবার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত

  • রবিবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০২০

উৎসবমুখর পরিবেশে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের দ্বিবার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শনিবার দুপুর ২টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত মহানগরীর জিন্দাবাজারে সংগঠনের কার্যালয়ে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এর মাধ্যমে আগামী দুই বছরের জন্যে নেতৃত্ব নির্বাচন করা হয়েছে।
নির্বাচনে ১৫টি পদের মধ্যে আজাদ-ছামির পরিষদ থেকে ১২ প্রার্থী এবং অপূর্ব-নাসির পরিষদ থেকে ৩ প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন।
সভাপতি পদে আল আজাদ ৬১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী অপূর্ব শর্মা পেয়েছেন ৩৭ ভোট। সহ সভাপতি (১ম) পদে মঈন উদ্দিন ৫১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মনোয়ার জাহান চৌধুরী পেয়েছেন ৪৪ ভোট। সহ সভাপতি (২য়) পদে বিজয়ী এস সুটন সিংহ পেয়েছেন ৫২ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ফয়ছল আহমদ মুন্না পেয়েছেন ৪১ ভোট। সাধারণ সম্পাদক পদে ছামির মাহমুদ ৫৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নাসির উদ্দিন পেয়েছেন ৩৩ ভোট। সহ সাধারণ সম্পাদক পদে বিজয়ী সৈয়দ রাসেল পেয়েছেন ৫৩ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আজমল খান পেয়েছেন ৪৬ ভোট। কোষাধ্যক্ষ পদে মিসবাহ উদ্দিন আহমদ বিজয়ী হয়েছেন ৩৬ ভোট পেয়ে। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাদিকুর রহমান সাকি পেয়েছেন ৩০ ভোট। অপর দুই প্রতিদ্বন্দ্বী রবি কিরণ সিংহ (মাইস্লাম রাজেশ) পেয়েছেন ২৪ ও ইমরান আহমদ ৮ ভোট। ক্রীড়া ও সংস্কৃতি সম্পাদক পদে শংকর দাস ৫৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আবু বকর পেয়েছেন ৪১ ভোট। প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পদে বিজয়ী নুরুল হক শিপু পেয়েছেন ৫০ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রাহুল তালুকদার পাপ্পু পেয়েছেন ৪৫ ভোট। তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক পদে সুলতান আহমদ বিজয়ী হয়েছেন ৬১ ভোট পেয়ে। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এম এ মালেক পেয়েছেন ৩১ ভোট। পাঠাগার সম্পাদক পদে মঞ্জুর হোসেন খান বিজয়ী হয়েছেন ৪১ ভোট পেয়ে। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নুরুল ইসলাম পেয়েছেন ৩৩ ভোট। অপর প্রার্থী আলী আকবর চৌধুরী কূহিনুর পেয়েছেন ২০ ভোট। দপ্তর সম্পাদক পদে বিজয়ী এসএম রফিকুল ইসলাম সুজন পেয়েছেন ৬৩ ভোট। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শেখ মো লূৎফুর রহমান পেয়েছেন ৩১ ভোট। এছাড়া নির্বাহী সদস্য পদে ইউসুফ আলী ৬৮ ভোট, মাহমুদ হোসেন ৫৪ ভোট, মিঠু দাস জয় ৪৫ ভোট ও আমিনুল ইসলাম রোকন ৩৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।
সদস্য পদে আমিনুল ইসলাম রোকন ৩৯ ও আব্দুল আহাদ সমান ৩৯ ভোট পেয়েছিলেন। পরে লটারির মাধ্যমে আমিনুল ইসলাম রোকন নির্বাচিত হন।
অপর প্রার্থীদের মধ্যে শফিকুল ইসলাম শফি ২৯, রায়হান উদ্দিন ২৮ ও একরাম হোসেন ১৮ ভোট পেয়েছেন।
নির্বাচন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন, সিলেট সিটি করপোরেশন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন খান, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন, মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা বিজিত চৌধুরী, ডা আরমান আহমদ শিপলু, মহানগর বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এমদাদ হোসেন চৌধুরী, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মাহি উদ্দিন আহমদ সেলিম, সিলেট বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থার সহ সভাপতি আব্দুল জব্বার জলিল, বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম ডিলার্স, ডিস্ট্রিবিউটর্স, এজেন্টস এন্ড পেট্রোলপাম্প ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় মহাসচিব জুবায়ের আহমদ চৌধুরী, মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার আজবাহার আলী শেখ, রেঞ্জ পুলিশ সুপার জেদান আল মুসা, মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার সুদীপ দাস, জেলা পুলিশের অতিরিক্ত সুপার লুৎফুর রহমান, সাইফুল ইসলাম, উইমেন্স চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি স্বর্ণলতা রায়, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি মিশফাক আহমদ চৌধুরী মিশু, কোতয়ালি থানার সহকারী পুলিশ কমিশনার শামসুল ইসলাম, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো সেলিম মিয়া, বিএনপি নেতা লোকমান আহমদ, জেলা যুবলীগের সভাপতি শামীম আহমদ, সাধারণ সম্পাদক মো শামীম আহমদ, মহানগর যুবলীগের সভাপতি আলম খান মুক্তি, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক দেবাংশু দাস মিঠু ও রোজভিউ হোটেলের সেলস প্রধান ডাল্টন জাহির। গণমাধ্যম ব্যক্তিত্বদের মধ্যে এসেছিলেন ছিলেন, দৈনিক একাত্তরের কথার প্রকাশক ও জেলা প্রেসক্লাবের উপদেষ্টা নজরুল ইসলাম বাবুল, সম্পাদক চৌধুরী মুমতাজ আহমদ, ইমজা সিলেটের সভাপতি মাহবুবুর রহমান রিপন, সাধারণ সম্পাদক সজল ছত্রী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলিম শাহ, অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি মুহিত চৌধুরী, ক্রীড়ালেখক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আহবাব মোস্তফা খান প্রমুখ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More
স্বত্ব : খবরসবর ডট কম
Design & Developed by Web Nest