NATIONAL
The Bangladesh government has decided to award the Peace Medal in the name of Father of the Nation Bangabandhu Sheikh Mujibur Rahman || বাংলাদেশ সরকার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে শান্তি পদক দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে
সংবাদ সংক্ষেপ
SCC announced the cancellation of new holding tax সিসিকের নতুন হোল্ডিং ট্যাক্স বাতিল || আবার এসেসমেন্ট করে গ্রহণযোগ্য ট্যাক্স নির্ধারণ বিশ্বশান্তির জন্য বঙ্গবন্ধুর দর্শন ও কর্মময় জীবন সংগ্রামকে ধারণ করতে হবে জৈন্তাপুরে পুলিশের অভিযানে ৫১০ বোতল ফেনসিডিলসহ নারী গ্রেফতার রাষ্ট্রপতি শিল্প উন্নয়ন পুরস্কার লাভে আতাউল করিমকে চেম্বারের অভিনন্দন সিলেট সিটি করপোরেশনের নতুন হোল্ডিং ট্যাক্সের ভাগ্য নির্ধারণ হবে আজ জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় কৃষি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে : কৃষিমন্ত্রী সিলেটে মায়াবন সাহিত্য সংস্কৃতি পরিষদের ২৪তম সাহিত্য সভা অনুষ্ঠিত বিভ্রান্তিকর ও ভুয়া খবর ভবিষ্যৎ বাংলাদেশের ভিত্তি নির্মাণে হুমকি রাষ্ট্রপতি শিল্প উন্নয়ন পুরস্কার অর্জন করলেন এ কে এম আতাউল করিম Professor Golam Rasul, the Academician with a Difference || Mihirkanti Choudhury জনগণের মতামতের ভিত্তিতে রি-এসেসমেন্ট : নাদেল || হোল্ডিং ট্যাক্স হবে সহনীয় : মেয়র প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিকতায় সিলেট থেকে সৌদি আরবে সরাসরি হজ্ব ফ্লাইট : শফিক চৌধুরী সিলেটে প্রথম `এডভান্সড কৃষি গবেষণা’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলন বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র ববির জন্মদিনে সিসিক মেয়রের দোয়া মাহফিল আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহারে শাল্লায় ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে

আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনে যাওয়া হলোনা মোয়াজ্জেম হোসেন আলালদের

  • রবিবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৬

বিশেষ প্রতিবেদক : বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বেশ বড় গলায়ই বলেছিলেন, তারা আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনে যাবেন। যাবেনই না শুধু-সেখানে গিয়ে আওয়ামী লীগের ভুলগুলোও ধরিয়ে দেবেন। তার এই সুস্পষ্ট ঘোষণা দেশবাসীকে বেশ আশার আলো দেখিয়েছিল বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে। সবাই ধরে নিয়েছিলেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনে দেশের প্রধান বিরোধীদল বিএনপি অংশ নিলে মূল দুটি রাজনৈতিক দলের মধ্যে দূরত্ব অনেকটা কমে আসবে।
সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল একজন উদার মনের রাজনীতিবিদ। বিএনপিতে তার মতো আরও কিছু নেতা আছেন যারা বর্তমান রাজনীতিতে গুণগত পরিবর্তন চান। তারা বিশ্বাস করেন, রাজনীতির মাঠ ব্যক্তিগত পছন্দ-অপছন্দ বা মান-অভিমানের জায়গা নয়। এই মাঠে খেলতে গেলে মন বড় করতে হয়-ব্যক্তির চেয়ে দল ও দেশকে বড় করে দেখতে হয়। এর প্রমাণ দিতেও মাঝে মধ্যে চেষ্টা করেন; কিন্তু সফল হতে পারেন না। যেমন এবারও ব্যর্থ হয়েছেন।
এই ব্যর্থতার মূলে রয়েছে জামায়াতে ইসলামীর প্রতি বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের দুর্বলতা। যেহেতু স্বাধীনতা বিরোধী এই দলটিকে আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি সেহেতু বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্ব বেঁকে বসেছে-এটাই মনে করতে হচ্ছে।
বিএনপির কোন কোন নেতা বলছেন, আওয়ামী লীগ তাদের কাউন্সিলে না আসায় তারাও যাননি। অথচ সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেছিলেন, আওয়ামী লীগ আসেনি; কিন্তু বিএনপি যাবে। এমনকি দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও যাবার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন।
বিএনপি নেতারা আওয়ামী লীগ সরকারের সমালোচনা করে সবসময় বলেন, সরকার এটা করেনি-ওটা করেনি্; কিন্তু যখন জানতে চাওয়া হয়, ‘আপনারা ক্ষমতায় থাকতে এ কাজটি কেন করলেন না’ তখন বলে উঠেন, ‘আমরা করলাম না বলে আওয়ামী লীগ করবে না কেন।’
এখন যদি প্রশ্ন করা হয়, আওয়ামী লীগ আপনাদের কাউন্সিলে গেলো না বলে আপনারা কি তাদের জাতীয় সম্মেলনে যেতে পারেতেন না।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More

লাইক দিন সঙ্গে থাকুন

স্বত্ব : খবরসবর ডট কম
Design & Developed by Web Nest